গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাগুরায় ভেজাল সার ও কীটনাশকের অবৈধ কারখানার সন্ধান

0
114

মোঃ কাশেমুর রহমান শ্রাবণ, মাগুরা জেলা প্রতিনিধি ॥ মাগুরা সদর উপজেলার শ্রীকান্তপুর গ্রামে ভেজাল সার ও কীটনাশক তৈরীর বড় ধরনের একটি কারখানার সন্ধান পেয়েছে কৃষি বিভাগ।

মঙ্গলবার বিকালে মোস্তাফিজুর রহমান কাজল নামে এক ব্যক্তির অবৈধকারখানা থেকে উদ্ধার হয়েছে বিপুল পরিমান ভেজাল সার ও কীটনাশক।মাগুরা সদর উপজেলার সহকারি ভুমি কমিশনার মোহম্মদ মাহাবুবুলআলম ও সদর উপজেলার কৃষি কর্মকর্তা রুহুল আমীনের নেতৃত্বে একটিভ্রাম্যমান

আদালত এ অভিযান চালায়।

অভিযানে উদ্ধারকৃত ভেজাল সারকীটনাশকের মধ্যে রয়েছে ৪ হাজার ২’শ কেজি ম্যাগনেসিয়াম সালফেট,৬২ বস্তা ডলোচুন, ৩ হাজার ৭৬০ কেজি জিপসাম সার, ২৫ বস্তা পাথরকুচি, ৮ বস্তা বালি, ২৫ প্যাকেট দস্তা, কনফিডেন্স নামে বিপুল পরিমানভেজাল কীটনাশকসহ কীটনাশক তৈরীর ইনডাস্ট্রিয়াল রং ও নানা উপকরন।এসব ভেজাল সার ও কীটনাশক বাজারে বিক্রি করে কাজল কমপক্ষে অর্ধকোটিটাকা অবৈধভাবে আয় করতো।সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রুহুল আমীন জানান, গোপনসংবাদের ভিত্তিতে দুপুরে কাজলের এই কারখানায় অভিযান চালালে এসব মালামাল উদ্ধার হয়।

দীর্ঘদিন ধরে কাজল এ কারখানায় এসব ভেজাল সার ওকীটনাশক ব্যবহার তৈরি করে বাজারজাত করছে। যা মাটির উর্বরতাবৃদ্ধির বিপরীতে ব্যাপক ক্ষতি করছে। পাশাপাশি এসব কীটনাশক কিনেকৃষকরা প্রতারিত হচ্ছে। ক্ষতি হচ্ছে ফসলের। এ কারখানার বৈধ কোনকাগজপত্র নেই। অভিযানের খবর পেয়ে মালিক কাজল পালিয়েছে। কারখানারব্যবস্থাপক মফিজুর রহমানকে আটক করা হয়েছে।রুহুল আমীন আরো জানান, কাজল অতীতে ভেজাল সার ও কীটনাশসহএকাধিকবার ধরা পড়ে জেল হাজতে গেছে। কিন্তু পরে জামিনে বেরিয়ে এসেস্থান বদল করে নতুন কারখানা গড়ে আবার তার অপকর্মে লিপ্ত হয়। আগে সদরউপজেলার রাঘবদাইড়, ছোট ব্রিজ এলাকায় তার কারখানা ছিল।