মামলা তুলে না নেওয়ায় মেয়ের বাবাকে কোপাল দুর্বৃত্তরা

0
60

 

বগুড়ার শাজাহানপুরে মামলা তুলে না নেওয়ায় মেয়ের বাবাকে রামদা দিয়ে উপর্যুপরি কুপিয়েছে দুর্বৃত্তরা। গুরুতর আহত অবস্থায় তিনি বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

গতকাল বৃহস্পতিবার (১০ জানুয়ারি) রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার কাঁটাবাড়ীয়া উত্তরপাড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানায়, কাঁটাবাড়ীয়া উত্তরপাড়ার টুকু মিয়ার ছেলে রফিকুল ইসলাম (৪২) বিভিন্ন স্থান থেকে মুরগি কিনে নিজের ট্রাকে করে ঢাকায় বিক্রি করেন। দুই বছর আগে রফিকুল ইসলামের স্ত্রী রুজিনা বেগম (৩০) প্রতিবেশী বাবলু মিয়ার ছেলে মোফাজ্জল হোসেনের (৩৫) সঙ্গে পরকিয়ার টানে স্বামী-সন্তানকে রেখে পালিয়ে যান। পাঁচ মাস আগে রফিকুল ইসলামের নাবালিকা স্কুল পড়ুয়া মেয়ে আয়শা খাতুনকে (১৪) প্রতিবেশী ওয়াহিদুল ইসলামের ছেলে ইয়ামিন (২০) ফুঁসলিয়ে নিয়ে যান। এ ঘটনায় রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে থানায় অপহরণ মামলা দায়ের করেন।

রফিকুল ইসলামের বাবা-মা এবং স্বজনরা জানান, মামলা দায়েরের পর দেড় মাস আগে রফিকুল ইসলামকে বেদম মারপিট করে মাথা ফাটিয়ে দিলে আরেকটি মামলা করা হয়। এরপর থেকে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য চাপ দেওয়া হচ্ছিল। মামলা তুলে না নেওয়ায় বৃহস্পতিবার রাতে বাজার থেকে বাড়ি ফেরার পথে রফিকুল ইসলামকে রামদা দিয়ে বাম কাঁধ ও হাতসহ বিভিন্ন স্থানে কোপানো হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা থানার এসআই রুম্মান বলেন, অপহরণ মামলা দায়েরের পর মেয়েকে উদ্ধার করা হয়।

কিন্তু মেয়ে বাবার কাছে ফিরে যেতে রাজি না হওয়ায় এবং নাবালিকা হওয়ায় রাজশাহী সেইফ হোমে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ বলেন, রফিকুল ইসলামের স্ত্রী ও মেয়েকে নিয়ে প্রতিবেশী প্রতিপক্ষের সঙ্গে দ্বন্দ্বের জের ধরে ইতিপূর্বে মারপিট ও একাধিক মামলা হয়েছে। গত রাতের মারপিটের ঘটনায় এখনো কোনো অভিযোগ হয়নি। অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।