‘পত্রিকা বিক্রি করা আমার নেশা’

0
62

শাহিনুর ইসলাম প্রান্ত,লালমনিরহাটঃ
আমাদের সমাজে নেশার অভাব নেই। অনেক ধরণের মাদক নেশায় আজ এই সমাজ নষ্টের দিকে। তবে সমাজে এখন সব চেয়ে বেশি ‘মাদক’ নেশায় ভূগতে হচ্ছে তরুণ-তরুণী,যুবক ও বৃদ্ধদের। মাদক নেশায় যখন সমাজ হচ্ছে নষ্ট। তখন মোহাম্মদ আলী মানুষের মাঝে পত্রিকা বিক্রি করে খবর পৌছে দেওয়ার নেশায় ভূগছে। তবে এই নেশাটি সমাজে একটু ভিন্ন। মোহাম্মদ আলী তরুণ থেকেই পত্রিকা বিক্রীর কাজ শুরু করেন। মানুষের কাছে খবর পৌঁছে দেয়া আমার পেশার থেকে নেশা হয়ে গেছে। এইটা আমি কখনই পেশা ভেবে নেই না। এই খবর পৌঁছে দেওয়া আমার এক ধরণের নেশা হয়ে গেছে।’এই শংকার কথা গুলো বলছিলেন লালমনিরহাট সদর উপজেলার  মোগলহাট ইউনিয়নের ফুলগাছ এলাকার মোহাম্মদ আলী (৭৫)। জীবনের পড়ন্ত বেলায় এসে দেখেন, পত্রিকা বিলি করার এই কাজে ৩৫বছর পার হয়ে গেছে।  তিনি এর আগে বিভিন্ন পেশার সঙ্গে জড়িত ছিল।  সব কিছু ছেড়ে হাতে তুলে নেন পত্রিকা।  সেই শুরু।  এরপর থেকে এখনো চলছে।  রোদ-বৃষ্টি-ঝড় বা কনকনে শীত, যা-ই থাকুক না কেন, সব কিছু উপেক্ষা করে পত্রিকা ঠিকই পাঠকের দ্বারে দ্বারে পৌঁছে দেন মোহাম্মদ আলী। তবে বয়সের ভারে একটু বেড়াতে সমস্যা হলেও দমে যাননি।  একটু ভালো বোধ করলেই কয়েকটি পত্রিকা হাতে বেরিয়ে পড়েন।  আশপাশের বাসিন্দাদের কাছে বিক্রি করেন। বুড়িমারী থেকে লালমনিরহাট আসার পথে চোখে পড়লো বৃদ্ধ বয়সে ট্রেনে যাত্রীদের কাছে পত্রিকা বিক্রি করছেন দৈনিক জাতীয় পত্রিকা গুলো। জানা গেছে, মোহাম্মদ আলী লালমনিরহাট সদর উপজেলার মোগলহাট ইউনিয়নের ফুলগাছ এলাকার বাসিন্দা।  তাঁর পাঁচ ছেলে মেয়ে।  পত্রিকা বিক্রি করে সন্তানদের উচ্চ শিক্ষায় লেখাপড়া করিয়েছেন তিনি।  সন্তানরা এখন বিভিন্ন পেশায় জড়িত রয়েছেন।  তবুও এ বয়সে ছাড়তে পারেননি পত্রিকা বিক্রির কাজ। সংবাদপত্র এজেন্ট ছাদিকুল ইসলাম ছাদেক বলেন, হিসাব-নিকাশ, টাকাপয়সার লেনদেন—সবকিছুতেই মোহাম্মদ আলী বেশ স্বচ্ছ বলে জানান।  তিনি বলেন, ‘মোহাম্মদ ব্যাগে দিনে দিনে পত্রিকা বাড়ছে।  সে খুব যত্ন নিয়ে কাজটি করে।  দোকানে এসে নিজেই পত্রিকা গুনে, গুছিয়ে নেন।  আবার মাস শেষ হতেই বিক্রির টাকা বুঝিয়ে দেয়।  ফলে তার সঙ্গে কাজ করতে কোনো সমস্যা হয় না। মোহাম্মদ আলী বলেন, প্রতিদিন সংবাদপত্র বিক্রি করে যা উপার্জন হয়, তা দিয়ে তার ভালোই চলে।  এ বৃদ্ধ বয়সে সমাজের বোঝা না হয়ে একজন বেকার বৃদ্ধ ইচ্ছে করলেই তার মতো পরিশ্রম করে চলতে পারে।  ফিরিয়ে আনতে পারে সংসারের সচ্ছলতা।  এছাড়া সংবাদপত্র বিক্রির কাজটি তার ভালো লাগে।  মানুষের কাছে খবর পৌঁছে দেয়া তার পেশার থেকে নেশা হয়ে গেছে বলে জানান তিনি।