দামি বাইক না পেয়ে শ্বশুরকে পিটিয়ে রক্তাক্ত করলো জামাই

0
64

 

বিয়েতে দামি বাইকের আবদার করেছিলেন মেয়ের হবু বর। সেই আবদার না মিটানোয় শ্বশুরবাড়ির লোকজনকে মারধরের অভিযোগ উঠল জামাইয়ের বিরুদ্ধে। এই ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের জলপাইগুড়ির মাল বাজারে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জিনিউজের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গত ১৪ মার্চ স্থানীয় চ্যাংমাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দা মোহম্মদ বোড্ডাওয়ের মেয়ে মনোরা বেগমের সঙ্গে বিয়ে হয় ওদলাবাড়ি হিন্দি স্কুল পাড়ার বাসিন্দা রপিকুল রহমানের।  তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, বিয়ের পর থেকেই পণের দাবিতে মেয়ের উপর শুরু হয় অত্যাচার।  দেনা-পাওনা নিয়ে দুই বাড়ির মধ্যে অশান্তি শুরু হয়।

মেয়ের বাবা বোড্ডাওয়ের অভিযোগ, বিয়েতে খাট, আলমারি, আলনা, ডাইনিং টেবিল, সোনাদানার সঙ্গে দামি বাইক পণ হিসেবে চায় ছেলের বাড়ি।  তারা বাইক ছাড়া বাকি সব দাবিই মিটিয়ে দিয়েছিলেন। বাকি ছিল শুধু বাইকটা।  আর সেজন্য প্রতিদিনই মনোরাকে শারীরিক নির্যাতন করতেন শ্বশুরবাড়ির লোকজন।

এরপরই গত শুক্রবার মনোরার পরিবার বাইক কিনে দেওয়ার জন্য রফিকুলের বাড়ি যান। জামাইকে হোন্ডা কোম্পানির বাইক কিনে দেওয়ার কথা জানান তিনি।  কিন্তু জামাই দাবি করেন আরও দামি বাইকের। সেই দাবি না মিটতেই তাদের উপর চড়াও হয় সে।  অভিযোগ, মারের আঘাতে মাথা ফেটে যায় মনোরার কাকার। আহত হন আরও কয়েকজন।

আহতরা সকলে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আছেন বলে আরও জানানো হয়েছে।

এই ঘটনায় মাল বাজার থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন মনোরার পরিবার। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করে রপিকুলের দাবি, বিয়েতে মনোরার পরিবারের তরফে কিছুই দেওয়া হয়নি। এমনকি বিয়ের আগেই তাকে মারধর করা হয়েছিল। তবুও সে নাকি বিয়েতে রাজি হয়েছিল।

রপিকুল আরও অভিযোগ করেন, ঘটনার দিন মনোরার বাবার বাড়ির লোকেরা তাদের বাড়িতে এসে তাদেরকেই মারধর করেন।