মামাকে বাঁচাতে ঢাবি ছাত্রীর খাবার বিক্রি

0
59

 

মামা অসুস্থ। তার হার্টে ব্লক ধরা পড়েছে। চিকিৎসার খরচ অনেক বেশি। কিন্তু তাও ভালোবাসার এই মানুষটা দূরে চলে যাবেন মানতে পারেননি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইন্সটিটিউট অব এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চের চতুর্থ বর্ষের ছাত্রী ফারজানা সুলতানা। মামাকে বাঁচাতে নিজ ক্যাম্পাসেই খুলেছেন অস্থায়ী খাবারের দোকান।

ফারজানার মামা আবু মুসা একজন রিকশাচালক। হার্টে ব্লক ধরা পড়ার তারা জানতে পারেন চিকিৎসকরা জন্য খরচ হবে প্রায় আড়াই লাখ টাকা। সংসারের অনটন এমন মুসার একার পক্ষে নিজের চিকিৎসা খরচ বহন করা প্রায় অসম্ভব। মামার এ অবস্থায় তার চিকিৎসার খরচ গোছাতে ব্যতিক্রমী এ উদ্যোগ গ্রহণ করে ফারজানা।

তাকে সাহাজ্যে নিজের ফেসবুকে কিছু ভলান্টিয়ার চেয়ে একটি পোস্ট দিয়েছেন এই ঢাবি ছাত্রী। ফরজানা জানান,পড়াশোনার পাশাপাশি রাজধানীর উদয়ন স্কুলে ইন্টার্ন শিক্ষক হিসেবে ক্লাস নেন। তার মামা বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি। এজন্য কিছুটা উদাসীন দেখে শিক্ষার্থীরাই তাকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। কিন্তু সামান্য এই অর্থ দিয়ে কিছুই হবে না। ইতোমধ্যে টাকা বাকি রেখে দুটি রিং পরানোও হয়েছে। ৬ মাস পর আরো একটা রিং পরাতে হবে।

তিনি আরও জানান, তার মামার চিকিৎসার জন্য আগামী সোমবারের মধ্যে ৪০ হাজার টাকা লাগবে। ৬ মাস পর আরও অনেক টাকা লাগবে। মামার আর্থিক অবস্থা ভালো না হওয়ায় খাবার বিক্রি অর্থ সংগ্রহ করছি।

গত বৃহস্পতিবার প্রাথমিকভাবে তার ১২ জন ক্লাসমেটের জন্য খাবার রান্না করেছিলেন ফারজানা। তারা সকলেই খাবার খেয়ে উৎসাহ দিয়েছেন। এজন্য তিনি শুক্রবার সুফিয়া কামাল হল এবং টিএসসিতে অস্থায়ী খাবার বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। এতে তার সহপাঠীরা তাকে সাহায্য করছেন বলেও জানান ফারজানা।

ঢাবির এই ছাত্রী বলেন, খাবারের স্টলে বিভিন্ন রকম ভর্তা, ভাজি, ডাল, মাছ, ভাত এবং পায়েস রাখা হয়েছে। খাবারের মূল্য তালিকাও দেয়া হয়েছে। স্টলের পাশেই ‘মামার জন্য’ লেখা একটি বাক্স রাখা হয়েছে। কেউ চাইলে আর্থিক সহযোগিতা করতে পারেন।