ফ্রান্সের তুলুজে ২৭ তম আন্তর্জাতিক ভাষামেলায় বাংলাদেশীদের অংশগ্রহন ।

0
82

সংস্কৃতি বলতে আমরা সাধারণত সমাজে জনগোষ্ঠীর একগুচ্ছ রীতি-নীতি, ধ্যান-ধারণা ও সামাজিক আচরণকে বুঝে থাকি| ভৌগলিক সীমান্তের দরুন সাংস্কৃতিক পার্থক্য ঘটে থাকে| কোন একটি বিশেষ সংস্কৃতির ক্ষেত্রে ভাষা, বর্ণ, খাদ্যাভাস, সামাজিক আইন-কানুন, সঙ্গীত এবং শিল্পকলা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে|

স্মরণাতীত কাল থেকে বিভিন্ন জনগোষ্ঠী তাদের নিজস্ব সংস্কৃতি বহন করে নিয়ে আসে এবং সময়ের সাথে সাথে বিভিন্ন প্রজন্মের হাতে তা হস্তান্তরিত হয়েছে| সংস্কৃতির মাধ্যমে মানুষ একে অপরের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে থাকে এবং একই সাংস্কৃতিক পটভূমিতে একটি জনগোষ্ঠী গড়ে তোলে|

বিবর্তনের সাথে অভ্যস্ত হয়ে যাওয়া জনগোষ্ঠীর পরিচায়ক রূপে সেই জনগোষ্ঠীর সংস্কৃতিকে চিহ্নিত করা হয়| সাংস্কৃতিক পরিণয় মাধ্যমেই আমরা পূর্বপুরুষদের কাছ থেকে প্রাপ্ত বিভিন্ন গুণাবলী অর্জন ও ধারণ করে থাকি, যা জীবনের অর্থ চিহ্নিত করে| সাংস্কৃতিক বহনের মাধ্যমেই কোন নির্দিষ্ট জনগোষ্ঠীর বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য সমূহ ফুটে উঠে|

আর এই সকল সংস্কৃতি তুলে ধরার লক্ষে,  ফ্রান্সে তুলুজ শহের আয়োজিত হয়ে গেলো ২৭ তম আন্তর্জাতিক ভাষামেলা ২০১৯ । ১৯৯২ সালে তুলুজ শহরে Carrefour Culturel Arnaud-Bernard এর উদ্দেগে স্থানীয় মেয়র এর সহযোগিতায় সর্বপ্রথম এই মেলার আয়োজন করা হয় । ফ্রান্সের মধ্যে মারসাই এর পর তুলুজ দ্বিতীয় শহর যেখানে এই মেলা হয়ে থাকে । এছাড়া ইউরোপের অনন্য কোন দেশে এখন পর্যন্ত এই মেলার আয়োজন করা হয় নি । এই মেলায় প্রতি বছর ১৫০ টির ও অধিক দেশ অংশগ্রহন করে থাকেন ।

মেলায় প্রতিটি দেশকে  স্থানীয় মেয়র এর পক্ষ থেকে স্টল প্রদান করা হয়ে থাকে । দুপুর ১২ টা থেকে বিকাল ৬ টা পর্যন্ত একদিনের এই মেলায় প্রতিটি দেশ তার নিজ নিজ দেশের ঐতিহ্যও সংস্কৃতি ও ইতিহাস তুলে ধরেন ।

তার মধ্যে রয়েছে ঐতিহ্যওবাহী খাবার , নানা রংবেরঙের পোশাক , বাদ্যযন্ত্র সহ অন্যান্য জিনিস পত্র । এর পাশাপাশি প্রতিটি দেশ তাদের ইতিহাস ও ঐতিহ্যও তুলে ধরার জন্য বিভিন্ন ধরনের ফেস্টুন ও ম্যাগাজিন প্রদশন করে থাকেন এই মেলায় ।

মেলার এক পাশে সাজানো হয় উন্মুক্ত মঞ্চ , যেখানে প্রতিটি দেশ তাদের কৃষ্টি ও সংস্কৃতি তুলে ধরেন নানান ধরনের অংশগ্রহণের মাধ্যমে, তার মধ্যে রয়েছে নাচ, গান, আবৃতি , নাটক সহ বিভিন্ন ভাবে ।

ফ্রান্সের তুলুজে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশীদের পক্ষে ২০০৪ সালে সর্ব প্রথম বাংলাদেশী কমিউনিটি এসোসিয়েশন তুলুজ–ফ্রান্স এই মেলায় অংশগ্রহন করে থাকেন । দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে এই মেলায় অংশগ্রহন করার ফলে ফ্রান্স সমাজে পরিচিতি লাভ করে নিয়েছে বাংলাদেশের  ঐতিহ্যও, সংস্কৃতি ও ইতিহাস ।

প্রতি বছরের মতো এবারো ২৭তম আন্তর্জাতিক ভাষামেলা ২০১৯ এ অংশগ্রহন করেন বাংলাদেশ । বিগত বছর গুলোর মতো এবারো বাংলাদেশের পক্ষে প্রতিনিধিত্ব করেন  বাংলাদেশী কমিউনিটি এসোসিয়েশন তুলুজ–ফ্রান্স ।

বাংলাদেশের স্টলে প্রদর্শন করা হয় বাংলাদেশের  ইতিহাস সম্পর্কিত ফ্রান্স ভাষায় অনুবাদ করা বই , বাংলা বর্ণমালা , বাংলাদেশের ৫২ ভাষা আন্দোলন থেকে ৭১ এর মুক্তিযোদ্ধা সম্পর্কিত ভিবিন্ন তথ্যচিত্র ।

উন্মুক্ত মঞ্চে গ্লরিয়া ইভার পরিচালনায় বাংলাদেশী নৃত্য পরিবেশন করেন স্থানীয় শিশু শিল্পীরা ।

এছাড়াও মেলায় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশী কমিউনিটি এসোসিয়েশন তুলুজ–ফ্রান্স এর সভাপতি ফখরুল আকম সেলিম , জাহাঙ্গীর হোসেন ,শ্রীবাস দেবনাথ দেব , জোসেফ ডি কস্তা , তাজিম উদ্দিন খোকন, ফারুক হোসেন  , ফিরোজ আল মামুন, শাকিল চৌধুরি, মার্ক রায় , রেমন্ড ডি কস্তা ও মিশুক হোসেন ।

প্রবাসী বাংলাদেশীরা সহ বিশ্বের অন্যান্য দেশের মানুষের আগমনে এই মেলা পরিণত হয়ে এক আন্তর্জাতিক মিলন মেলায় ।