এতিম শিশুদের পাশে মম

0
48

 

গত শুক্রবার ২৪ মে রাজধানীর উত্তরার উত্তরখানের একটি বৃদ্ধাআশ্রমে গিয়েছিলেন চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা। বৃদ্ধাআশ্রমটির নাম ‘আপন নিবাস বৃদ্ধাআশ্র’। সেখানে থাকা বৃদ্ধাদের জন্য নিজের হাতে রান্না করে নিয়ে গেছেন পূর্ণিমা। বৃদ্ধাশ্রমে থাকা মায়েদের সঙ্গে সময় কাটানোর বেশ কয়েকটি স্থিরচিত্র শনিবার (২৫ মে) নিজেই ফেসবুকে পোস্ট করেছেন এই নায়িকা। সে ছবিতে বৃদ্ধাশ্রমে বৃদ্ধাদের সঙ্গে হাস্যোজ্জল পূর্ণিমাকে দেখা গেছে। তাকে পেয়ে অসহায় মায়েরাও খুশিতে আত্মহারা। খানিক সময়ের জন্য যেন নিজের সন্তানকেই কাছে পেয়েছিলেন তারা। পূর্ণিমার এমন কাজের প্রশংসা করেছেন তার ভক্ত থেকে শুরু করে সর্বস্তরের মানুষ।

এদিকে পূর্ণিমার পথেই পা বাড়িয়েছিলেন চলচ্চিত্রের আরেক অভিনেত্রী জাকিয়া বারী মম। তবে মম কোনো বৃদ্ধাশ্রমে জাননি। এই নাট্যাভিনেত্রী গিয়েছিলেন প্রতিবন্ধী ও এতিম শিশুদের পাশে দাঁড়িতে। সম্প্রতি রাজধানীর উত্তরায় প্রায় অর্ধশত অসহায় এতিম, প্রতিবন্ধীদের সঙ্গে ইফতার করার পাশাপাশি তাদের মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ করেন। গরিব, অসহায় এসব শিশুরা এ সময় মমকে পাশে পেয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত হন।

এ বিষয়ে মম বলেন, ‘সবসময়ই আমার ইচ্ছা করে অসহায় এতিম প্রতিবন্ধীদের জন্য কিছু করতে। শিল্পীদের মধ্যে অনেককেই অনেক সময় অসহায়দের পাশে দাঁড়াতে দেখেছি। শুধু দেশেই নয়, দেশের বাইরেও বিশ্বব্যাপী অসহায় এতিম প্রতিবন্ধী শিশুদের পাশে দাঁড়িয়েছেন আমাদের দেশের গর্ব শ্রদ্ধেয় ববিতা আপা। তার এ বিষয়টিও আমাকে অনেক অনুপ্রেরণা দেয়। আমারও সবসময় ইচ্ছা করে এতিম প্রতিবন্ধীদের পাশে দাঁড়াতে।’

মম আরও বলেন, ‘আমার যদি অনেক অর্থ থাকতো, তাহলে হয়তো সমাজের সব অসহায় এতিম প্রতিবন্ধীর পাশে দাঁড়াতাম। তাদের আর কোনো কষ্ট থাকত না। তারপরও, তাদের জন্য আমি যতটুকুই করতে পেরেছি সেটাই আমার জন্য অনেক ভালোলাগার, আনন্দের।’

এদিকে, জাকিয়া বারী মম বর্তমানে ঈদের নাটকে অভিনয় নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। তবে এবার অনান্য বারের চেয়ে বেছে বেছে কাজ করছেন তিনি। এবারর ঈদে তার অভিনীত ‘শেষ চিঠি’, ‘তুমি কার আকাশে ওড়ো’, ‘ভুল ভাঙাতে ভুল করা’, ‘কানামাছি’সহ বেশ কিছু নাটক টেলিভিশন ও অনলাইন মাধ্যম গুলোতে প্রচারিত হবে।