বিএনপির কার্যালয় সাবেক ছাত্রদল নেতাদের দখলে

0
18

 

বয়সসীমা নির্ধারণ না করে চিরাচরিত ঐতিহ্যকে অনুসরণ করে ধারাবাহিক কমিটি গঠনের দাবিতে আন্দোলন করছেন ছাত্রদলের বিগত কমিটির নেতাকর্মীরা। রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের মূল ফটকে তালা ঝুঁলিয়ে দখলে নিয়েছেন তারা। সেখানে কাউকে ঢুকতে বা বের হতে দিচ্ছেন না। এমনকি বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী সেখানে ঢুকতে চাইলে ধাক্কা দিয়ে বের করে দেয়া হয় বলে জানা গেছে।

আজ মঙ্গলবার সকাল সোয়া ১১টায় বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে এ আন্দোলন শুরু করেন সাবেক ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। এর আগে সকাল ১০টা থেকে সাবেক ছাত্র নেতারা কার্যালয়ের সামনে জড়ো হতে থাকেন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, সকাল সোয়া ১১টায় কার্যালয়ের মূল ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেন ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। পরে ১১টা ২০ মিনিটে কার্যালয়ের সামনে আসেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুর হক মিলন, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী এবং প্রশিক্ষণ বিষয় সম্পাদক এবিএম মোশারফ হোসেন।

বিএনপির এই চার নেতা কার্যালয়ে প্রবেশ করতে চাইলে তাদেরকে বাধা দেন সাবেক ছাত্রনেতারা। এ সময় তাদের সাথে ছাত্রনেতাদের কমিটির বিষয়ে তর্ক-বিতর্ক হয়।

বিএনপির চার নেতাকে ছাত্রনেতারা বলেন, ‘বয়সসীমা না করে ছাত্রদলের ধারাবাহিক কমিটি দিতে হবে। এ সময় শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী কার্যালয়ে ভিতরে গিয়ে কথা বলার অনুরোধ করেন। তবে ছাত্রনেতারা বলেন, ভিতরে নয়, এখানেই কথা বলুন।

পরে বরকত উল্লাহ বুলু কার্যালয়ের সামনে থেকে চলে যান। আর মিলন, এ্যানী ও মোশারফ কার্যালয়ে পাশে বইয়ের দোকানে বসতে চাইলে দোকানের সাটার নামিয়ে দেন। এরপর এ্যানী ছাত্রনেতাদের ধমক দিলে এক নেতা তাকে ধাক্কা দেন।

ছাত্রনেতাদের সঙ্গে তর্ক-বিতর্ক শেষে সাংবাদিকদেরকে ফজলুল হক মিলন বলেন, কমিটির বিষয়ে সিদ্ধান্ত দল থেকে দেয়া হয়েছে। আর আমরা সবাই বসে এটা কার্যকর করবো। তবে দুঃখ ও অভিমান থাকতেই পারে। এটা অস্বাভাবিক কোনো ঘটনা না। আর তাদের দুঃখ ও বেদনা আমরা শুনবো। সেটা আমরা বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে বলবো।