ভৈরবে কল্যাণ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দুস্থ প্রতিবন্ধীদের মাঝে বস্ত্র ও নগদ অর্থ বিতরণ

0
21

মিলাদ হোসেন অপু,ভৈরব:

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ভৈরবের বেসরকারি সামাজিক সাহায্য সংস্থা কালিকাপ্রসাদ দুস্থ প্রতিবন্ধী কল্যাণ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে দুস্থ প্রতিবন্ধীদের মাঝে বস্ত্র ও নগদ অর্থ বিতরণ করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় উপজেলার কালিকাপ্রসাদ মিয়া বাড়ি মাঠে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। মূল অনুষ্ঠান শুরুর আগমুহুর্তে ভৈরব উপজেলা পরিষদের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো. সায়দুল্লাহ মিয়াকে অনুষ্ঠানের আয়োজকদের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।

সংবর্ধনা শেষে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে উপজেলা চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা মো. সায়দুল্লাহ মিয়া দুস্থ প্রতিবন্ধীদের হাতে নগদ অর্থ ও পণ্য বিতরণ করেন।
ভৈরব কালিকাপ্রসাদ দুস্থ প্রতিবন্ধী কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সভাপতি হাজী মো. শাহজাহান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন ভৈরব উপজেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম সেন্টু।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ভৈরব আনোয়ারা জেনারেল হাসপাতাল (প্রা.) লি. ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা ডা. মো. আজিজুল হক। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, অ্যাডভোকেট মো. ইমরান মিয়া, কালিকাপ্রসাদ ইউপি চেয়ারম্যান মো. ফারুক মিয়া, ভৈরব উপজেলা আওয়ামী লীগ স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. মিজানুর রহমান কবির, সমাজসেবক হাজী মো. রইছ মেম্বার, কালিকাপ্রসাদ ইউনিয়ন জাতীয় পার্টি সভাপতি মদ্রিস খাঁন কামাল, কালিকাপ্রসাদ ঈদগাহ মাঠ পেশ ইমাম মাওলানা আব্দুস ছাত্তার প্রমুখ।
দুস্থ প্রতিবন্ধী কল্যাণ ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক মাসুদ রানা ও উপ-নির্বাহী পরিচালক (সার্বিক) হাসান মো. শামীম এর সঞ্চালনায় প্রতিবন্ধীদের অভিভাবকসহ সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সবশেষে মরহুম প্রতিবন্ধী আফতাব উদ্দিন খান, লোকমান হোসেনসহ মরহুম প্রতিবন্ধীদের স্মরণে মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি আলহাজ্ব মো. সায়দুল্লাহ মিয়া বলেন, সারা বিশ্বে প্রতিবন্ধীদের প্রধান অভিভাবক জননেত্রী শেখ হাসিনার কন্যা সায়মা ওয়াজেদ পুতুল। এটা আমাদের গর্ব। আমাদের বাংলাদেশেও প্রতিবন্ধীদের জন্য তিনি দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। ঈদ আসলেই এই প্রতিবন্ধী সংগঠনের পক্ষ থেকে কালিকাপ্রসাদ ইউনিয়নে দুস্থ প্রতিবন্ধীদের মাঝে নগদ অর্থ ও বিভিন্ন ধরণের পণ্য বিতরণ করা হয়। কিন্তু এখানে কোন পুনবার্সন নেই। কালিকাপ্রসাদ ইউনিয়নে দুস্থ ও প্রতিবন্ধীদের জন্য ফাউন্ডেশনের সভাপতি হাজী মো. শাহজাহান সাড়ে তিন শতাংশ জায়গা দান করেছেন। তিনি একজন মানবসেবক। তিনি প্রশংসনীয় একটি কাজ করেছেন। আমি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হিসেবে আমার দায়িত্বে থেকে আমি এ জায়গায় প্রতিবন্ধীরে জন্য পুনবার্সনের ব্যবস্থা করব।

সরকারি যত সুযোগ সুবিধা আছে আমি তা দেওয়ার চেষ্টা করব। আমার প্রথম কাজ হলো এ প্রতিবন্ধীদের জন্য কিছু হুইল চেয়ারের ব্যবস্থা করা এবং আমি তা খুব দ্রুত তাদের হাতে পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করব। কালিকাপ্রসাদ ইউনিয়নের উন্নয়নের অসম্পূর্ণ কাজগুলো সম্পন্ন করব।