ভৈরবে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদে এর সুফল ভোগ করবে বৃহৎ জনগোষ্ঠী

0
78

মিলাদ হোসেন অপু,ভৈরব:

ঢাকা-ভৈরব-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কের ভৈরবের হাজী আসমত কলেজ সংলগ্ন এলাকা থেকে জগন্নাথপুর-লক্ষ্মীপুর হাজী ইউসুফ আলী উচ্চ বিদ্যালয় পর্যন্ত সড়কটির দুই পাশের পৌরসভার জায়গা দখল করে গড়ে ওঠা দুই শতাধিক অবৈধ দোকান-পাট উচ্ছেদ করেছে পৌর কর্তৃপক্ষ। আজ বুধবার দুপুরে এই অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ শুরু করে পৌর কর্তৃপক্ষ।

পৌরসভার প্রকৌশল বিভাগ জানায়, বর্তমানে ওই সড়কটি ২৪ ফুট প্রশ্বস্ত। ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের ভৈরব বাসস্ট্যান্ড দুর্জয় মোড়ের যানজট নিরসনের লক্ষ্যে জগন্নাথপুর-লক্ষ্মীপুর রেললাইনের পাশ থেকে সাতমূখির বিলের উপর দিয়ে ঢাকা-ভৈরব-কিশোরগঞ্জ মহাসড়ক সংযুক্ত হওয়া এই বাইপাশ সড়কটি প্রশ্বস্তকরণের উদ্যোগ নেয় পৌর কর্তৃপক্ষ।

বিশ্বব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় এমজিএসপি, এলজিইডি কর্তৃক ভৈরব পৌরসভা গৃহিত প্রকল্পের আওতায় ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ২৪ ফুট প্রশ্বস্তকরণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। ইতোমধ্যে টেন্ডারসহ সড়কটি নির্মাণের সকল প্রস্তুতিও শেষ করা হয়। কিন্তু সড়কটির উভয়দিক দখল করে দুই শতাধিক দোকান-পাট গড়ে ওঠায় ঠিকাধারী প্রতিষ্ঠান তাদের কাজ শুরু করতে পারছিলেন না। সড়কটি নির্মাণের বাঁধা দূরীকরণের লক্ষ্যে পৌর কর্তৃপক্ষ আজ এই উচ্ছেদ অভিযান চালায়।

উচ্ছেদ অভিযান শুরুর আগে ভৈরব পৌরসভার মেয়র বীরমুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট ফখরুল আলম আক্কাছ বলেন, এই উচ্ছেদ বা ভাংচুর কোনো ব্যক্তি বিশেষের জন্য করা হচ্ছে না। স্থানীয় জনগণের স্বার্থে করা হচ্ছে। আধুনিক ড্রেনেজ ব্যবস্থাসহ সড়কটির নির্মাণকাজ শেষ হলে এলাকার বৃহৎ জনগোষ্ঠী এর সুফল ভোগ করবে। সহজ যাতায়াতসহ ব্যবস্থা-বাণিজ্যেও গতিশীলতা আসবে। এলাকার জমির মূল্য বৃদ্ধিসহ বসবাসের জন্য উপযোগী হয়ে উঠবে।

এ সময় পৌরসভার সিনিয়র সহকারী প্রকৌশলী আরিফ সারোয়ার বাতেন, পৌর কাউন্সিলর মো. নজরুল ইসলাম সরকার, মোহাম্মদ আলী সোহাগসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।