পরী নয়, এসেছিলেন এক মানবিক পরী!

0
10

 

 

বিখ্যাত শিল্পী ভূপেন হাজারিকার গাওয়া ‘মানুষ মানুষের জন্য/জীবন জীবনের জন্য। একটু সহানুভূতি কি/ মানুষ পেতে পারে না…ও বন্ধু!’ গানটি শুনলে একজন কঠিন সীমার মানুষেরও মন গলে যায়! হয়ত এই গানের অনুপ্রেরণায় মানুষ মানুষের পাশে এসে দাঁড়ায়! গানের কথাগুলো যেন সত্যিতেই রূপ নিল সোমবার এফডিসিতে। কিছু অসচ্ছ্বল মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে এফডিসিতে উড়ে এসেছিলেন এক মানবিক পরী!

তবে বাস্তবে ডানাকাটা পরী নয়, উড়ে এসেছিলেন বাংলা চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা পরীমনি। জীবন জীবনের জন্য আর মানুষ মানুষের জন্য এগিয়ে আসা তার।

এফডিসিতে তিনি গত তিন বছর থেকে কোরবানি করে দিয়ে আসছেন দুস্থ শিল্পীদের। আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল শিল্পী ও কলাকুশলীদের পরিবারের মুখে একটু হাসি ফোটাতে তার এই মহৎ উদ্যোগ বলে জানান তিনি। এরই ধারাবাহিকতায় এবারও ঈদুল আযহার দিনে গরু কোরবানি করেন তিনি।

এবার তিনি চারটি গরু কোরবানি দেন। এরপর সোমবার (১২ আগস্ট) বিকেলে তিনি নিজ হাতে কোরবানির মাংস বিতরণ করেন। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন,তার নানা ও পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার।

প্রসঙ্গত, ২০১৬ সালে এফডিসিতে কোরবানি শুরু করেন চিত্রনায়িকা পরীমনি। প্রথম বছর একটি পরের পর দুইটি এবং পরের বছর তিনটি গরু কোরবানি দেন তিনি। এরই ধারাবাহিকতা এবার এফডিসিতে চারটি গরু কোরবানি দিলেন পরীমনি।