নিখোঁজ স্বামীকে খুঁজে পেতে ফিরোজার আহাজারি

0
14

কাজী সাইফুল, দেবীগঞ্জ, পঞ্চগড়:

পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ চেংঠী হাজরাডাঙ্গার মোঃনায়েব আলী(৭৭)নামেরএকজন বৃদ্ধ গত প্রায় তিন চার মাস আগে নিখোঁজ হয়েছেন আজ পর্যন্ত তার কোন খোঁজ মিলেনি।

পারিবারিক শত্রুতায়ই আমার স্বামী নিখোজ হয়েছে এমন অভিযোগ স্ত্রী ফিরোজা বেগমের।ফিরোজা (৬৭) পাগলি প্রায় মানুষের ধারে ধারে স্বামীর খোজে ঘুরছেন।এব্যাপারে পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ থানায় গত ২০/৪/১৯ তারিখে একটি নিখোঁজ সংবাদের সাধারন ডায়েরী করা হয়। যাহার ডায়রী নং ৮৮৯।নিখোঁজ ব্যাক্তির স্ত্রী ফিরোজা বেগম বলছেন গত তিন চার মাস হতে আত্বীয় স্বজন পর্যন্ত কেউ আমার স্বামীর খোজ দিতে পারছেনা।

ফিরোজা বেগম আরো বলেন আমার স্বামীর সাথে আমার দেবর ভাশুরদের সাথে দীর্ঘদিন যাবত বাড়ীর ভিটে মাটি নিয়ে বিরোধ চলছিলো কোন মতেই মিটাইতে পারছিলামনা যার জের ধরেই আমি আমার স্বামীকে হারিয়েছি।আর এখন তাদের অত্যাচারের কারনে আমিও বাড়ীতে থাকতে পারছিনা। রাত হলে আমাকেনানা রকম ভয়ভীতি দেখায় এখন আমি রাত কাটাই আমার মেয়ের বাড়ীতে। ইতিপুর্বেও সুকুমুদ্দীন পিতা বুরজত আলি, কালাম পিতা জবেদ আলি, শহিদুল পিতা জবেদ আলি, সুজাব আলি পিতা সুকুমুদ্দীন ও জসমত পিতা সুকুমুদ্দীন গন আমাকে ও আমার স্বামী অনেক মারধর করেছিল যার কারনে আমরা দেবীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিতে হয়েছিল।

ফিরোজা বেগম বলেন আমার স্বামী বাড়ী থেকে বের হয়ে আর ফিরে আসেনি ৭০/৮০ বছর বয়সে কোথায় আছে কিভাবে আছে জানিনা। তবে আমার স্বামীকে ছাড়া জীবনের শেষ প্রান্তে এসে আমি আর পারছিনা। জীবিত কিংবা মৃত যেভাবেই হোক আমি আমার স্বামীকে ফেরত পেতে চাই।ফিরোজা বেগম আরো বলেন অনেক খোজা খুজির পরেও যেহেতু আমার স্বামীর খোজ মিলছেনা সেহেতু আমি মনে করি আমার স্বামীকে গুম অথবা নিখোঁজ করা হয়েছে এবং সেটা পারিবারিক দন্দের কারনেই করা হয়েছে।