এক যুগের মধ্যেই ভারত খণ্ড-বিখণ্ড হয়ে যাবে: জাফরুল্লাহ

0
16

 

কাশ্মীর ইস্যুতে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, ভারতকে পরিষ্কার বলে দেওয়া দরকার- কাশ্মীরে যা হচ্ছে, আসামে যা হচ্ছে, সেখানে মানবিক আচরণ করো। অভ্যন্তরীণ ব্যাপার বলে তুমি খালাস পাবে না। এক যুগের মধ্যেই ভারত খণ্ড-বিখণ্ড হয়ে যাবে।

শনিবার (৩১ আগস্ট) বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের জহুর আহমেদ হলে সাবেক প্রধানমন্ত্রী কাজী জাফর আহমদের ৪র্থ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ভাসানী অনুসারী পরিষদ আয়োজিত এক স্মরণসভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, তাদের (ভারত) সাবধান করে দেওয়া দরকার, আমরা তোমাদের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে হাত লাগাতে চাই না। কিন্তু, তুমি অমানবিক ব্যবহার করবে, সেটা হতে পারে না। আমাদের সংবিধানে নৈতিক দায়িত্ব আছে, যেকোনো জাতি, যেকোনো অঞ্চল আত্মনিয়ন্ত্রণের অধিকার, ন্যায়ের অধিকারের জন্য সংগ্রাম করবে- তাতে সর্বত্র সমর্থন দেওয়া।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, ১৯ দল ও ঐক্যফ্রন্টকে একত্রিত হতে হবে। সময় এসেছে জামায়াত সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেওয়ার। আর দেরি করা ভুল হবে। এটা জামায়াতের জন্য ক্ষতিকর, দেশের রাজনীতির জন্যেও। এর একমাত্র বেনিফিশিয়ারি (সুবিধাভোগী) বর্তমান ক্ষমতাসীন দল। এ ধরনের দল যতদিন টিকে থাকবে, ততদিন রাজনীতিতে গতিশীলতা আসবে না।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা আরও বলেন, কাজী জাফর নেই বলে বাংলাদেশের রাজনীতি বন্ধ হয়ে যাবে না। আমি মনে করি, কাজী জাফরের শূন্যস্থানটা আমরা মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে দিতে পারি। এ অবস্থায় তিনিই সবচেয়ে উপযুক্ত ব্যক্তি।

তিনি বলেন, মির্জা ফখরুলের করণীয় কয়েকটা কাজ আছে। তার হাত শক্তিশালী করা যেমন বিএনপির সব নেতাকর্মীর দায়িত্ব ও কর্তব্য, তেমনি তাকেও জিয়াউর রহমানের আদলে বলতে হবে, ‘আই টেক কমান্ড’। আজ তাকে পরিষ্কারভাবে বলতে হবে, ছাত্রদলে ২৫ বছরের বেশি কোনো নেতা থাকবে না। প্রেমিকা থাকতে পারে, স্ত্রী থাকলে এসব দায়িত্বের মধ্যে তাকে যাওয়া চলবে না।