কুমিল্লায় দুই স্কুলের ছাত্রীদের মধ্যে সংঘর্ষ, আহত ৫

0
16

 

কুমিল্লার দেবিদ্বারে ৪৮তম গ্রীষ্মকালীন স্কুল, মাদ্রাসা ও কারিগরি ক্রীড়া প্রতিযোগিতার খেলা শেষে প্রতিপক্ষের হামলায় চ্যাম্পিয়ন দলের ৫ শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে ২ জনকে রক্তাক্ত অবস্থায় দেবিদ্বার উপজেলা সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

জানা যায়, বুধবার( ৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে দেবিদ্বার রেয়াজ উদ্দিন পাইলট মডেল সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মফিজউদ্দিন আহাম্মেদ পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও আজগর আলী মুন্সী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সাথে গ্রীস্মকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় উপ-জোনের কাবাডি ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়। ওই খেলায় মফিজউদ্দিন আহাম্মেদ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ছাত্রীরা চ্যাম্পিয়ন হয়।

দেবিদ্বার মফিজউদ্দিন আহাম্মেদ পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ মজিবুর রহমান জানান, খেলা শেষে আমার বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা বের হওয়ার পর খেলায় পরাজিত আগজর আলী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা ইট-পাটকেল ছুঁড়লে ৫ শিক্ষার্থী আহত হয়। এদের মধ্যে গুরত্বর আহত অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী নাফিজানুর ও সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী মৌমিতা আক্তারকে রক্তাক্ত অবস্থায় দেবিদ্বার উপজেলা সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে এবং অপর আহত দশম শ্রেণীর ছাত্রী কাজল রেখা, তানজিনা আক্তার ও সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী তিথি আক্তারকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে বাসায় পৌছে দেওয়া হয়েছে।

তবে হামলার অভিযোগ অস্বীকার করে আজগর আলী মুন্সী বলিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আলী আকবর জানান, আমার বিদ্যালয়ের সাথে মফিজ উদ্দিন স্কুলের উপ- জোনের কাবাডি ফাইনাল খেলা ছিল, খেলা চলাকালীন সময়ে মাঠে কোন সংঘর্ষ হয়নি। তবে ছাত্রীদের উপর মাঠের বাহিরে হামলার খবর শুনেছি, কিন্তু আমার বিদ্যালয়ের কোন ছাত্রী ওই হামলায় জড়িত ছিল না, এই অভিযোগটি মিথ্যা,বানোয়াট ও ভিত্তিহীন।

এ বিষয়ে মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার এ কে এম আলী জিন্নাহ জানান, দেবিদ্বারে ৪৮ তম গ্রীষ্মকালীন স্কুল, মাদ্রাসা ও কারিগরি ক্রীড়া প্রতিযোগিতার খেলায় হামলার ঘটনায় মফিজ উদ্দিন বলিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা আহত হওয়ার সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল ও সরকারী হাসপাতালে ছাত্রীদের দেখে এসেছি। তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।