গনপদ্দী উচ্চ বিদ্যালয়ে ৮০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনের প্রস্তুতি চলছে

0
28

 

মো. সুখন, শেরপুর প্রতিনিধি:
শেরপুরের নকলা উপজেলার দ্বিতীয় প্রাচীনতম গনপদ্দী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮০তম
প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন ও বিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাতা মরহুম ডা. শরাফত উদ্দিন আহমেদের  ৫০তম মৃত্যুবার্ষিকী পালন উপলক্ষে তাঁর জীবনাদর্শ ও ঐতিহ্য স্মৃতিচারণে স্মরণ সভা ও দোয়া অনুষ্ঠানসহ ঘোষিত কর্মসূচীগুলো সুষ্ঠুভাবে পালনের জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি প্রায় শেষের দিকে।
জানাগেছে, ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে শেরপুর-২ (নকলা-নালিতাবাড়ি) আসনের এমপি সাবেক সফল কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যান প্রফেসর তাসলিমা খাতুন বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার সদয় সম্মতি জ্ঞাপন করেছেন।
৭ সেপ্টেম্বর শনিবার দিনব্যাপী এ অনুষ্ঠানের অংশ গ্রহনের জন্য এরই মধ্যে বিভিন্ন দপ্তর প্রধান ও শিক্ষা সংশ্লিষ্টদের কাছে চিঠি মুলে দাওয়ত পৌঁছানো হয়েছে। অনুষ্ঠান সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে গঠন করা হয়েছে উপকমিটি। অনুষ্ঠান সুচারু
ভাবে সম্পন্ন করতে বেশ কয়েকবার আলোচনা ও মত বিনিময় সভা করেছে সংশ্লিষ্ট কমিটি ও উপকমিটির সদস্যবৃন্দরা।
ঐতিহ্যবাহী এই বিদ্যালয়টি নকলা উপজেলা শহর থেকে ৩ কিলোমিটার পশ্চিমে ঢকা-শেরপুর মহাসড়কের পাশে গনপদ্দী এলাকায় অবস্থিত। গনপদ্দী বাজারের পূর্বপাশে এই বিদ্যালয়টির অবস্থান। বিদ্যালয়ে ছোট-বড় কয়েকটি ভবন, কম্পিউটার ল্যাব, বিজ্ঞানাগার, শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে বিশাল কমনরুম, আছে নামাজরে স্থান, শিক্ষক মিলনায়তন, প্রধান শিক্ষকের জন্য রয়েছে সুসজ্জিত কক্ষ, শিক্ষার্থীদের খেলার সুবিধার্থে আছে বিশাল খেলার মাঠ।
বিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থী আজ সচিবসহ সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের গুরু দায়িত্বে রয়েছেন। বর্তমান প্রধান শিক্ষক মো. ফজলুল হক জানান, এই বিদ্যালয়ের সুনাম ছড়িয়ে আছে দেশ বিদেশে।
৮০ বছরের পুরাতন এই বিদ্যাপীঠ বহু শিক্ষাব্রতী মানুষের প্রচেষ্টার ফসল। বিশেষ করে বিদ্যালয়টির প্রতিষ্ঠাতা মরহুম ডা. শরাফত উদ্দিন আহমেদের অবদান অনস্বীকার্য ও অবর্নণীয় বলে জানান স্থানীয় শিক্ষানুরাগী মহল। বিদ্যালয় পরিচালনা
পরিষদের সভাপতি এডভোকেট ফিরোজ উদ্দিন আহমেদ জানান, এই বিদ্যালয়ের শিক্ষকরা
অত্যন্ত অভিজ্ঞ। তারা দক্ষতার সহিত শিক্ষার্থীদের পাঠদান করে আসছেন বলেই ফলাফলে বরাবর
সেরা প্রতিষ্ঠানের স্বীকৃতি পেয়ে আসছে।