সাভারে যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ

0
7

 

সাভারের আশুলিয়ায় সংখ্যালঘু এক পরিবারের জমি দখল, দোকান পাট ও সাইনবোর্ড ভাঙচুরসহ মারধরের অভিযোগ উঠেছে থানা যুবলীগের প্রভাবশালী এক নেতা ও এক কর্মীর বিরুদ্ধে। এছাড়া প্রাণনাশসহ পরিবারটিকে ভারতে তাড়িয়ে দেওয়ার হুমকি প্রদান করা হয়েছে বলেও অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বৃহস্পতিবার (৫ সেপ্টেম্বর) সকালে আশুলিয়ার বেরন ছয়তলা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় স্ট্রারলিং কারখানার বিপরীত পাশে এ ঘটনা ঘটে। এঘটনায় ভুক্তভোগী শ্রী ধীরেন্দ্র চন্দ্র বাদি হয়ে আশুলিয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা সুমন ভূইয়া আশুলিয়া থানা যুবলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক। তিনি ইয়ারপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ আহমদ ভূইয়ার ছেলে, এছাড়া অভিযুক্ত উজ্জল ভূইয়া ইয়ারপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক কর্মী।

ভুক্তভোগী শ্রী ধীরেন্দ্র চন্দ্র বলেন, আজ সকালে ছয়তলা বাসস্ট্যান্ডে এলাকায় স্ট্রারলিং কারখানার বিপরীত পাশে তার পৈত্রিক সম্পত্তিতে নির্মাণ কাজ করছিলেন তিনি। এসময় প্রভাবশালী যুবলীগ নেতা সুমন ভূইয়া ও উজ্জল ভূইয়াসহ কয়েকজন জমিতে এসে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেয় ও নির্মাণ শ্রমিকদের মারধর করে। এছাড়া স্থাপনা, দোকান পাট, সাইনবোর্ড ভাঙচুর ও প্রাণে মেরে ফেলাসহ ভারতে তাড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দেওয়া হয়।

এব্যাপারে অভিযুক্ত যুবলীগ নেতা সুমন ভূইয়া বলেন, জায়গাটা ধীরেন্দ্র এর ভাতিজা সম্ভুর। সেখানে ধীরেন্দ্র নির্মাণকাজ শুরু করে। এলাকার লোক হিসেবে আমরা সেখানেই যাই। পরে ঝামেলা হলে আমরা চলে আসি। এটা এক সপ্তাহ আগের ঘটনা। আজকে যে ঘটনা সেটা আমি শুনেছি। তবে আমি সেখানে ছিলাম না। তারা কি কারণে অভিযোগ করলো জানি না। আমি তাদের বাড়ি যাবো অভিযোগ কেন করলো সে বিষয়ে শুনতে।

এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত না বলেও দাবি করেন তিনি।

এবিষয়ে উজ্জল ভূইয়া বলেন, আমি বাসা থেকেই বের হইনি। এ ব্যাপারে আমি কিছুই জানি না।

তিনি দাবি করেন, ষড়যন্ত্রমূলক তাদের ফাঁসানো হচ্ছে। তবে বিরোধপূর্ণ জমিটি তাদের বলেও জানান তিনি।

এ ব্যাপারে আশুলিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রাম কৃষ্ণ রায় বলেন, এখন পর্যন্ত এধরণের কোন ঘটনার অভিযোগের কপি আমার কাছে আসেনি। তবে অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।