এক প্রবাসী যুবকের উপর সাকিবের ক্ষুব্ধ আচরণ

0
323

খেলাধুলা ডেস্কঃ   ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে সাকিল আল হাসানকে নিয়ে ৫৭ সেকেন্ডের একটি ভিডিও। তাতে দেখা যাচ্ছে, বাংলাদেশ দল ফ্লোরিডার টিম হোটেলে ফেরার সময় লবিতে দাঁড়ানো এক প্রবাসী যুবকের উপর ক্ষুব্ধ আচরণ করছেন টেস্ট ও টি-টুয়েন্টি অধিনায়ক। এক সময় সাকিব চড়াও হয়ে ওই সমর্থকের দিকে এগিয়ে গেলে সেখানে উপস্থিত অন্যান্যরা তাকে শান্ত করে হোটেলের ভেতরে পাঠিয়ে দেন।

ঠিক কী কারণে এমন আচরণ করেছেন সাকিব? প্রকৃত কারণ জানা না গেলেও বিষয়টি নিয়ে আলোচনা-সমালোচনার রীতিমতো ঝড় বইছে। ঘটনাটি নিয়ে সাকিব নিজে এখনো পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেননি।

তবে বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান বলেন, ‘আমি ভিডিওটি দেখিনি। সাকিব দেশে ফিরলে তার সঙ্গে কথা বলে এ ব্যাপারে মন্তব্য করতে পারবো।’

মঙ্গলবার তারেকুর রহমান নামের এক প্রবাসী বাংলাদেশি ভিডিওটি ৯৭ জনকে ট্যাগ করে পোস্ট করেন। ক্যাপশনে তিনি লেখেন, ‘এমন একজন সিনিয়র ক্রিকেটারের কাছ থেকে এই ধরনের আচরণ মেনে নেয়ার মতো নয়; বিশেষ করে যিনি বাংলাদেশ দলকে পুরো বিশ্বের কাছে তুলে ধরেন, সাকিবকে ধিক্কার।’

মুহূর্তেই ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে যায় ভিডিওটি। লাল-সবুজ জার্সিতে জড়ানো, প্ল্যাকার্ড হাতে থাকা একজন ভক্তের সঙ্গে ক্রোধান্বিত আচরণ করায় সাকিবের সমালোচনাই বেশি হচ্ছে।

সাকিবের এমন আচরণ নতুন নয়। ২০১৩ সালে সিলেটে বিজয় দিবস টি-টুয়েন্টি ক্রিকেট টুর্নামেন্ট চলাকালে ড্রেসিংরুমের সামনের গ্যালারিতে গিয়ে এক দর্শকের শার্টের কলার চেপে ধরেন সাকিব। অটোগ্রাফ দিতে অস্বীকৃতি জানালে কটূক্তি করেন ওই দর্শক। পরের বছর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে স্ত্রীকে উত্যক্ত করায় দর্শক পেটান এই ক্রিকেটার।

দেশের বাইরে গিয়ে কেন সাকিব এক দর্শকের উপর ক্ষিপ্ত হয়েছিলেন সেটি জানা না গেলেও
কেউ কেউ বলছেন, নিরাপদ সড়কের দাবির ব্যাপারে এক ভক্ত কিছু বলতে বললে, তার দিকে নাকি তেড়ে যান সাকিব।

অবশ্য শেখ মিনহাজ হোসেন নামের একজন নিজের ফেসবুকে আইডি থেকে লিখে জানিয়েছেন ভিন্ন কথা। তিনি সেখানে (টিম হোটেলে) উপস্থিত ছিলেন দাবি করে লেখেন, ‘প্রথমে বলে নেই, যত যাই হোক, সাকিবের ওভাবে তেড়ে আসা ঠিক হয়নি। আমি সাকিবের তেড়ে আসা সমর্থন করছি না। দেশের আইকন হিসেবে তাঁর আরেকটু সচেতন থাকা উচিত।’

তিনি আরো জানান, ‘আসলে প্রশ্নটা মোটেও নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের ব্যাপারে ছিল না। ওই লোক সাকিবের কাছে বারবার অটোগ্রাফ চাইছিল। সাকিব প্রথমে একটা সেলফি তুলেছে। এরপর আবার ভিডিও করতে চায়। সাকিব তখন ম্যাচ শেষে টায়ার্ড। সাকিব পারবেনা বলে সামনে চলে যায়। লোকটা পিছন থেকে “ভাব মারায়” বলে বাজে ভাষা ব্যবহার করে। সাকিব তখন চেতে ফেরত আসে! ওখানে নিরাপদ সড়ক আন্দোলন সংক্রান্ত কোনো প্রশ্ন ছিল না।’

প্রকৃত ঘটনা কী, সেটা জানতে অপেক্ষা করা ছাড়া উপায় নেই। বৃহস্পতিবার সকালে যুক্তরাষ্ট্র থেকে দেশে ফিরবে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে ও টি-টুয়েন্টি সিরিজজয়ী বাংলাদেশ দল। ফেরার পরই হয়তো সাকিব নিজে অথবা টিম ম্যানেজমেন্টের কারও মুখ থেকে শোনা যাবে সেদিনের আসল ঘটনা!