তাড়াইলে সূর্যের হাসি ক্লিনিকে অর্ধকোটি টাকা লুটপাট

0
124
সূর্যের হাসি ক্লিনিক তাড়াইল শাখায় সার্ভিস প্রমোটর জামাল মিয়া সেবা গ্রহিতা গর্ভবতী মহিলাদের নিকত হইতে বিভিন্ন খাত হইতে প্রায় ৫০ লক্ষ টাকার বেশী আত্নসাত করিয়াছেন।
সূর্যের হাসি ক্লিনিক তাড়াইল শাখায় ৩৬ জন সি এস পি নিয়োজিত আছে। তারা প্রত্যেকে প্রতি মাসে সম্মানী, যাতায়াত ভাতাসহ বিভিন্ন খাতে প্রায় ১,১৫০-২,০০০ টাকা প্রাপ্ত হন। প্রকৃতপক্ষে, সি এস পিরা কোন টাকা পান না। প্রত্যেক সি এস পির রকেট একাউন্টে টাকা আসলেও সার্ভিস প্রমোটর জামাল মিয়া সকলের সিম কার্ড থেকে টাকা তুলেন।
সি এস পিদের সাথে কথা বললে তারা জানান যে আমরা একাউন্টের পিন নাম্বার জানি না, কত টাকা আসে তাও জানি না। তাছাড়াও গর্ভবতী মহিলাদের চেকআপের জন্য ৮০ টাকা নির্ধারিত থাকলেও ২০০-৬০০ টাকা নেওয়া হয়। গর্ভকালীন সেবার কার্ড ইস্যু করার জন্য প্রত্যেক মহিলাদের কাছ থেকে ৮০০ টাকা নেওয়া হয়। গর্ভবতী মহিলাদের যাতায়াত খরচও দেওয়া হয় না। সি এস পি রা জানান বিগত ৫ বছর যাবত জামাল, চায়না ও কোহিনূর সিন্ডিকেট এই বানিজ্য করে আসছে। ৫ বছরে ৩৬ জন সি এস পি দের সম্মানী বাবদ প্রায় চল্লিশ লক্ষ টাকা। গর্ভবতী মহিলাদের নিকট হইতে প্রায় ১০ লক্ষ টাকা বা তারও বেশি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে জামাল সিন্ডিকেট।
সি এস পি রা জানান এই বিষয়ে তারা খুব শীঘ্রই সিভিল সার্জনের নিকট অভিযোগ করবেন।
সূর্যের হাসি ক্লিনিক তাড়াইল শাখার ব্যবস্থাপক রফিকুল ইসলাম সাহেবের সাথে কথা বললে তিনি জানান যে, আমি এই বিষয়ে কিছু জানি না, অভিযোগ পাওয়া গেলে অবশ্যই ব্যাবস্থা নেব।