প্রায় ৭শ জনের বিরুদ্ধে নৈরাজ্য সৃষ্টির অভিযোগ আনা হয়েছে

0
539

স্টাফ রিপোর্টারঃ   শুক্রবার (১০ আগস্ট) সকালে মনিপুরিপাড়ার নিজ বাসায় সাংবাদিকদের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘ভারতের সঙ্গে আমাদের আইন রয়েছে। আমাদের মধ্যে বন্দী বিনিময় চুক্তি রয়েছে। আমরা সময় মতো তাকে (মিজান) নিয়ে আসবো।’

নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের সময় সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে সাংবাদিকরা হামলা ও নির্যাতনের শিকার হন। নিন্দনীয় এ ঘটনায় ক্ষোভ জানিয়েছে সাংবাদিকসহ সাধারণ নাগরিকরা। দাবী উঠেছে, হামলাকারীদের গ্রেফতার করে বিচারের আওতায় আনার। এরই মধ্যে হামলা ও নির্যাতনকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পুলিশ কমিশনারকে নির্দেশ দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

বন্দী বিনিময় চুক্তির আওতায় ভারতে গ্রেফতার হওয়া বাংলাদেশের শীর্ষ জঙ্গি বোমারু মিজানকে শিগগিরই দেশে ফিরিয়ে আনা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এছাড়া শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলার সময় বসুন্ধরা আফতাবনগর ও শাহবাগে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষের ঘটনায় গ্রেফতার হওয়া বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ২২ জন ছাত্র রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে কিছু তথ্য দিয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। ২ দিনের রিমান্ড শেষে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে তাদের।

তবে তাদের দেয়া অন্তত ৪১ সন্দেহভাজন নাশকতাকারীর নাম পরিচয় জেনেছে পুলিশ। এদের গ্রেপ্তারে মাঠে নেমেছে পুলিশ ও গোয়েন্দারা। বাড্ডা ভাটারা ও শাহবাগ থানায় পুলিশের দায়ের করা মামলায় আন্দোলনরত ছাত্ররা ছাড়াও প্রায় ৭শ জনের বিরুদ্ধে পুলিশের কাজে বাধা, ভাঙচুর ও আগুন দেয়াসহ নৈরাজ্য সৃষ্টির অভিযোগ আনা হয়েছে।

২০১৪ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি ময়মনসিংহের ত্রিশালে প্রিজন ভ্যানে হামলা চালিয়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জঙ্গি সালাউদ্দিন সালেহীন ওরফে সানি ও রাকিবুল হাসান ওরফে হাফেজ মাহমুদের পাশাপাশি যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত মিজানকেও ছিনিয়ে নেয় জঙ্গিরা। পরে রাকিবুল হাসান ধরা পড়লে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত হন তিনি। আর বাকিদের খোঁজ পাওয়া যায়নি। এরা ভারতে পালিয়ে গেছেন বলে সে সময়ই গণমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশ হয়। আর গত সোমবার ব্যাঙ্গালুরুর এক গোপন আস্তানা থেকে মিজানকে গ্রেপ্তার করে দেশটির জাতীয় তদন্ত সংস্থা-এনআইএ।

২০০৫ সালে সারাদেশে জেএমবির একযোগে বোমা হামলা চালানোর সময় চট্টগ্রামে হামলাগুলোতে নেতৃত্ব দেন মিজান। একটি মামলায় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ছাড়াও তিনি ১৮ মামলার আসামি। মিজান তেজগাঁও পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ছাত্র ছিল। তার বাড়ি জামালপুরের মেলান্দহে।