অস্কারকে জনপ্রিয় করে উপস্থাপন করতে তিনটি পরিবর্তন আনার সিদ্ধান্ত

0
497

বিনোদন ডেস্কঃ   বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ আসর অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ড তথা অস্কার। অস্কার নিয়ে খোঁজ খবর রাখেন না এমন চলচ্চিত্র প্রেমীর দেখা পাওয়া বিরল! প্রায় একশো বছরের এই ঐতিহ্যবাহী পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে নানা সময়ে এসেছে পরিবর্তন, পরিবর্ধন। এবারও অস্কারে কিছু পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে ‘দ্য একাডেমি অব মোশন পিকচার আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেস’ কর্তৃপক্ষ।

অস্কারকে বিশ্বের মানুষের কাছে আরো জনপ্রিয় করে উপস্থাপন করতে তিনটি পরিবর্তন আনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

এরমধ্যে-

১। সামনের আসর থেকে অস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে ‘পপুলার ফিল্ম’ নামের একটি ক্যাটাগরি যুক্ত হতে যাচ্ছে।

২। ২০২০ সালে অস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে একটু এগিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। ৯ ফেব্রুয়ারি নির্ধারণ করেছে কর্তৃপক্ষ।

৩। অস্কার প্রদানের পুরো অনুষ্ঠানটি সাড়ে চার ঘন্টা থেকে কমিয়ে এনে তিন ঘন্টায় করার সিদ্ধান্ত।

অস্কার কর্তৃপক্ষের এমন সিদ্ধান্তকে ভালো ভাবেই গ্রহণ করেছেন অনেকে। বিশেষ করে অনেকেই অস্কারে ‘নতুন বিভাগ’ সংযুক্তি নিয়ে কথা বলেছেন। পর্যবেক্ষকদের অনেকে বলছেন, নতুন এ বিভাগ ব্ল্যাক প্যান্থার, মিশন ইমপসিবল-ফলআউট, অ্যাভেঞ্জারস: ইনফিনিটি ওয়ারের মতো সিনেমাকে জায়গা করে দেবে।

তবে ‘নতুন বিভাগ’টি নিয়ে অনেকে সন্তুষ্ঠ নন। কেনো না অনেকে বলছেন, অনেক ভালো ও জনপ্রিয় সিনেমা যেগুলো সেরা ছবির অ্যাওয়ার্ড জিততে পারে, সেগুলো এখন এ জনপ্রিয় বিভাগে চলে যাওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

গেল বছরেও অস্কার প্রদান অনুষ্ঠানটি সাড়ে চার ঘন্টা প্রচার হয়েছিলো। কিন্তু সামনের বছর থেকে তিন ঘন্টা পুরো প্যাকেজ করে ফেলায় অনেকে কিছুটা ক্ষুব্ধ হয়েছেন। কেনো না, একাডেমির নতুন সিদ্ধান্ত অনুসারে ২৪টি অ্যাওয়ার্ড প্রদানও আর প্রচার করা হবে না, বরং কিছু নির্দিষ্ট বিভাগেরটা প্রচারিত হবে। পরবর্তীতে সম্পাদনা করে প্রচার করবে অস্কার কর্তৃপক্ষ। এর সমালোচনা করে অনেকে বলেছেন, এ রকম সিদ্ধান্ত আন্তর্জাতিক উৎসবের মৌলিকত্ব নষ্ট করবে।

অস্কারের এমন পরিবর্তনে চারদিকে এমন মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা যাওয়ায় কিছুটা দ্বন্দ্বে আছে দ্য একাডেমি অব মোশন পিকচার আর্টস অ্যান্ড সায়েন্সেস।