‘বিদ্যুতের দাম বাড়ালে আদালতে যাবে বিএনপি’

0
3

 

আসছে বছরে রাজস্ব ঘাটতি দাঁড়াবে সাড়ে ৮ হাজার কোটি টাকা, তাই বিদ্যুতের পাইকারি দাম বাড়াতে হবে ২৩ শতাংশ। গত বৃহস্পতিবার এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের গণশুনানিতে এমন প্রস্তাব তুলে ধরে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড-পিডিবি। এর ধারাবাহিকতায় রোববার (১ ডিসেম্বর) শুনানির দ্বিতীয় দিনে, গ্রাহক পর্যায়েও দাম বাড়ানোর আবেদন জানায় প্রতিষ্ঠানটি।

 

তবে আবারো বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হলে আদালতে যাওয়ার হুমকি দিয়েছে বিএনপি।

 

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, দিন আনা দিন খাওয়া মানুষরা যা কিছু কামাই করে। সেই কামাই থেকে যারা চোখওয়ালারা তারা কামায়। এই প্রক্রিয়া বন্ধ করতে হবে। আর এটা বন্ধ করার জন্য আদালতে যাওয়ার জন্য বিএনপি প্রস্তুত আছে।

 

শুনানিতে অংশীজনরা প্রশ্ন রাখেন, বিদ্যুৎ খাতের অনিয়ম, দুর্নীতি আর সমন্বয়হীনতার দায় কেন চাপানো হচ্ছে সাধারণ মানুষের ওপর। অংশীজনদের বক্তব্যে উঠে আসে পিডিবির প্রস্তাবের নানা অসঙ্গতি। বলা হয়, দুর্নীতির রাশ টানতে পারলে দাম কমানো সম্ভব। নিত্যপণ্যের পাশাপাশি বিদ্যুতেরও দাম বাড়লে সাধারণ মানুষের নাভিশ্বাসের শঙ্কার কথা উঠে আসে শুনানিতে।

 

বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, এক টাকাও বাড়ালে এর প্রভাব খুবই খারাপ হবে। বিদ্যুৎ খাতকে দুর্নীতি মুক্ত অপচয় খাতে পরিণত করতে হবে। এই খাতে পরিণত করার আগে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো কথা আলোচনাই করা উচিত না। ।

 

এদিকে ব্যবসায়ীরা জানালেন বিনিয়োগ হুমকিতে পড়ার শঙ্কার কথা। আর বিএনপি প্রতিনিধির দাবি, বিদ্যুৎ খাতে বিশেষ ব্যবসায়ী শ্রেণীকে বাড়তি সুবিধা দেয়ার দায় চাপানো হচ্ছে সাধারণ ভোক্তাদের ওপর। আর এবার দাম বাড়লে হুমকি দেন আদালতে যাওয়ার।