কর্মীরা এখন নেতা, টোকাই দিয়ে পোস্টার লাগাতে হয়: কাদের

0
24

 

দলে নেতা যত বাড়ছে, কর্মী তত কমছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এমপি।

 

মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) দুপুরে খুলনা সার্কিট হাউজ মাঠে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে  প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ মন্তব্য করেন তিনি।

 

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মঞ্চ যত বাড়ছে, নেতা তত বাড়ছে। নেতা যত বাড়ছে, কর্মী তত কমছে। এখন আর পোস্টার-ব্যানার লাগাতে কর্মী খুঁজে পাওয়া যায় না। টোকাই দিয়ে, ভাড়া করা লোক দিয়ে পোস্টার লাগাতে হয়। কর্মীরা এখন নেতা, পোস্টার লাগাবে কে?’

 

দলের নেতা-কর্মীদের উদ্দেশ্যে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ছবি টাঙিয়ে, বিলবোর্ড প্রদর্শন করে নেতা হওয়া যায় না। নেতা হতে হলে নেতৃত্বের যোগ্যতা, কর্মীদের ভালোবাসা অর্জন করতে হবে।

 

দলের প্রকৃত কর্মীদের মূল্যায়ন করার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, কর্মীরা বাঁচলে আওয়ামী লীগ বাঁচবে। দুঃসময়ের কর্মীদের বাদ দিয়ে সুবিধাবাদীদের নেতা বানাবেন, সময় এলে এসব সুবিধাবাদী থাকবে না। দুঃসময় এলে বসন্তের কোকিলেরা হারিয়ে যাবে।

 

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘শেখ হাসিনার ডাইরেক্ট অ্যাকশন শুরু হয়ে গেছে। চাঁদাবাজ, দুর্নীতিবাজ, মাদক ব্যবসায়ী, সন্ত্রাসী, ভূমিদস্যুরা সাবধান। দাগী সন্ত্রাসী দুর্নীতিবাজরাই অনুপ্রবেশকারী। ক্লিন ইমেজ, ভালো লোকদের আপনারা দলে স্থান দেবেন। আত্মীয়-স্বজন দিয়ে পকেট কমিটি দিয়ে রাজনীতি করবেন না। আওয়ামী লীগে পকেট কমিটির কোনও প্রয়োজন নেই।

 

তিনি বলেন, ‘বিএনপির রাজনীতি চোরাবালিতে আটকে গেছে। বিএনপিকে নিয়ে বিচলিত হবেন না। বিএনপি এখন নালিশ পার্টি। প্রেস ব্রিফিং আর নালিশ করা ছাড়া বিএনপির আর কোনও অবলম্বন নেই। দেখতে দেখতে ১১ বছর। আন্দোলন আর কোন বছর? জনগণ বিএনপিকে আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না। কারণ বিএনপি জঙ্গিবাদের প্রশ্রয়দাতা, সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর পৃষ্ঠপোষক।’