জোনায়েদ সাকিসহ ১৪ জন হাসপাতালে

0
31

 

পুলিশের সঙ্গে বামজোটের কর্মীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় গণসংহতি আন্দোলনের সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি এবং দুই পুলিশ সদস্যসহ অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ১৪ জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

 

গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় নির্বাচনকে ভোট ডাকাতির নির্বাচন অ্যাখ্যা দিয়ে কালো পাতাকা মিছিল নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের দিকে যাচ্ছিল বাম গণতান্ত্রিক জোট। এ সময় মৎস্যভবন এলাকায় পুলিশ তাদের বাধা দিলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পুলিশ এ সময় জোটের নেতাকর্মীদের লাঠিপেটা করে। এ ঘটনায় এক পুলিশ সদস্যও আহত হয়েছেন।

 

ঢামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন গণংসহতি আন্দোলনের সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি গণমাধ্যমকে বলেন, আমাদের কর্মসূচিতে পুলিশ অতর্কিত হামলা চালিয়েছে। এতে আমার মাথা ফেটে গেছে। অনেকে আহত হয়েছেন। বেশ ক’জনকে ঢামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

 

জোটের সমন্বয়ক কাফী রতন জানান, হামলার ঘটনায় জোটের অন্যতম সমন্বয়ক ও বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকীসহ ২৫-২৬ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন ‘পুলিশের লাঠিপেটায়’। তারা সবাই ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

 

পুলিশের রমনা বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) সাজ্জাদুর রহমান বলেন, বাম জোটের নেতাকর্মীদের থামাতে পুলিশ ব্যারিকেড দেয়। তারা সেই ব্যারিকেড ভেঙে এগোতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়। তখন জোটে নেতাকর্মীরা পুলিশের ওপর হামলা করে। এতে দুই পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। পরে পুলিশ বাম জোটের নেতাকর্মীদের রাস্তা থেকে সরিয়ে দেয়।

 

ঘটনাস্থল থেকে পাঁচজনকে আটক করা হয়েছে বলে জানান তিনি।