জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত ফুটবলার বাদল রায় ইন্তেকেল করেছেন

0
13

সম্প্রতি গুরুতর অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন সাবেক তারকা ফুটবলার বাদল রায়। মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণজনিত কারণে শরীরের এক পাশ অবশ ছিল আগে থেকেই। এর পাশাপাশি নানান উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) ছিলেন তিনি। এরপর শোনা গেল লিভার ক্যানসারে আক্রান্ত তিনি।

এর এক সপ্তাহের মধ্যেই না ফেরার দেশে পাড়ি জমালেন বাদল রায়। রোববার ২২ নভেম্বর সন্ধ্যায় রাজধানীর একটি হাসপাতালে মারা যান তিনি। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বাদল রায়ের এক সময়ের সতীর্থ আরেক সাবেক ফুটবলার আবদুল গাফফার।

বাদল রায়ের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গত ৫ নভেম্বর আজগর আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল বাদল রায়কে। অবস্থার অবনতি হলে পরে নিয়ে যাওয়া হয় স্কয়ার হাসপাতালে। সেখানেই তাঁর ক্যানসার ধরা পড়ে। পরে নিয়ে যাওয়া হয় বাংলাদেশ মেডিকেলে, সেখানেই মারা যান তিনি।

এর আগে ২০১৭ সালে মস্তিষ্কে রক্তক্ষরণের কারণে অনেকদিন হাসপাতালে থাকতে হয়েছিল বাদল রায়কে। পরে বিদেশে গিয়ে চিকিৎসা করানোর পর সুস্থ হয়ে দেশে ফেরেন মোহামেডানের এই কিংবদন্তি ফুটবলার।

৮০-এর দশকে ঢাকার ফুটবলে অনেক বড় তারকা ছিলেন বাদল রায়। জাতীয় দল ও মোহামেডানকে অনেক সাফল্য এনে দিয়েছেন তিনি। মোহামেডানের ম্যানেজারও ছিলেন তিনি।

শুধু খেলোয়াড় হিসেবেই নয় কর্মকর্তা হিসেবেও যথেষ্ট সফল ছিলেন বাদল রায়। তিন মেয়াদে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশেনর সহসভাপতি ছিলেন। এর আগেও বিভিন্ন দায়িত্বে ছিলেন সাবেক এই তারকা ফুটবলার।

রাজনীতির মাঠেও সক্রিয় ছিলেন বাদল রায়। জাতীয় ক্রীড়া পুরস্কারপ্রাপ্ত এই সাবেক ফুটবলার ১৯৯১ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে কুমিল্লার দাউদকান্দি থেকে সংসদ সদস্য পদে নির্বাচন করেছিলেন। যদিও তখন হেরে গিয়েছিলেন।