প্রেম প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় স্কুলছাত্রীকে জবাই করে হত্যা

0
159

 

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ চট্টগ্রাম-দোহাজারী রেললাইনের পাশে পটিয়া উপজেলার দক্ষিণ ভূর্ষি বেলতল এলাকায় গতকাল শনিবার প্রেমের কারণে রিমা আক্তার নামে এক স্কুলছাত্রীকে দিনদুপুরে জবাই করে খুন করে প্রেম প্রস্তাবকারী বখাটে নজরুল ইসলাম মাসুদ (২২) নিজেই গলায় ছুরি দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে।

পটিয়া থানা পুলিশ নিহত ছাত্রীর পাশে মাসুদের গলাকাটা অবস্থায় উদ্ধার করে চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করে। বর্তমানে সে চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে।

এ ঘটনায় থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। রিমার বাবা মঞ্জুরুল আলম বাদী হয়ে এ মামলা করেন। এ মর্মান্তিক ঘটনায় এলাকায় বেশ চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

নিহত স্কুলছাত্রীর নাম রিমা আক্তার (১৩)। সে উপজেলার হাইদগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী এবং হাইদগাঁও ইউনিয়নের মঞ্জুরুল আলমের মেয়ে। মুমূর্ষু বখাটে যুবকটির নাম নজরুল ইসলাম মাসুদ (২২)। সে এলাকায় রাজমিস্ত্রীর কাজ করতো। তার বাড়ি পটিয়া পৌর সদরের ৯নং ওয়ার্ডের গোবিন্দারখীল ফইল্লাতলি এলাকায়। পটিয়া থানার ওসি ঘটনাস্থলে গিয়ে আহত যুবককে মেডিকেলে প্রেরণ করেন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রাম–দোহাজারী রেললাইনের পাশে পটিয়া উপজেলার দক্ষিণ ভূর্ষি ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ড এলাকায় বেলতল নামক স্থানে নিহত স্কুলছাত্রীর গায়ের উপর যুবকটি মুমূর্ষু অবস্থায় পড়ে ছিল। যুবকটি নড়াচড়া করলেও মেয়েটির নিথর দেহ মাটিতে পড়ে থাকতে দেখা যায়। নিহত ছাত্রীটির পড়নে ছিল স্কুল ইউনিফর্ম। মেয়েটির গলার ডান পাশে জবাই করার স্থান থেকে তখনও রক্তক্ষরণ হচ্ছিল। মেয়েটির মুখে পাঁচ–ছয়টি ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

যুবকটির গলায়ও ছুরিকাঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ছেলেটির হাতটি রক্তাক্ত দেখা গেছে। স্থানীয়রা দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বেঁচে থাকা যুকটিকে উদ্ধার করে প্রথমে পটিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করেন।
স্থানীয় লোকজন ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বখাটে নজরুল ইসলাম মাসুদ এলাকায় রাজমিস্ত্রির কাজ করে। প্রায় সময় সে হাইদগাঁও উচ্চ বিদ্যালয় সড়কে বখাটেপনা করতো। রিমাকে সে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে প্রায়ই উত্ত্যক্ত করতো। কিন্তু রিমা তার প্রস্তাব এড়িয়ে যেত। শনিবার স্কুলে যাওয়ার পথে রিমার পথরোধ করে প্রেমের প্রস্তাব দেয় মাসুদ। প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় রিমাকে ধরে নিয়ে যায়। বিকালের দিকে ভূর্ষি ইউনিয়নের বেলতল রেললাইনের পাশের বিল থেকে রিমার রক্তাক্ত মরদেহ পাওয়ার খবর প্রকাশ পায়।

দক্ষিণ ভূর্ষি ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য জায়েদুল হক জানান, স্কুলছাত্রী ও যুবককে বিলের উপর পড়ে থাকা অবস্থায় দেখে পুলিশকে খবর দেয়া হয়। তার ধারনা, যুবকটি মেয়েটিকে জবাই করে হত্যার পর গলায় ছুরি দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে।

পটিয়া থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ নেয়ামত উল্লাহ জানান, মৃত্যুর ঘটনাটি প্রেমঘটিত বলে ধারনা করা হচ্ছে। তদন্ত সাপেক্ষে মূল ঘটনা উদঘাটনের চেষ্টা করা হচ্ছে।