ভৈরবে গাছতলাঘাট এলাকায় দিন দুপুরে দুর্ধর্ষ ডাকাতি

0
211

মিলাদ হোসেন অপু, ভৈরবঃ কিশোরগঞ্জের ভৈরবে গাছতলাঘাট মুসলিমের মোড় এলাকায় অারিফ মিয়ার বাসায় দুর্ধর্ষ ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে । এসময় নগদ ১২ হাজার টাকাসহ ১ভরি স্বর্নাংলাকার, ৪টি স্মার্ট ফোন ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র লুট করে নিয়ে যায় । সোমবার বেলা ১২টায় পৌর শহরের গাছতলাঘাট মুসলিমের মোড় এলাকার রইছ মিয়ার ভবনে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

আরিফ এই ভবনের নিচতলার ভাড়াটিয়া। পুলিশ ও পারিবারিক সুত্রে জানা যায় , গাছতলা ঘাট এলাকার ভাড়াটিয়া আরিফ তিন মাস যাবত রইছ মিয়ার বিল্ডিংয়ের নিচতলায় বাসা ভাড়া নিয়ে থাকেন। আরিফ গরিপুর এলাকার উছমান গনির ছেলে। সে তার বউ লাকি বেগম  ও তিনবছরের শিশু সন্তান ইমামুল ইসলামকে সাথে নিয়ে এই বাসায় থাকেন।

শিশু সন্তান ইমামুলকে গলায় ছুরি ধরে তাদের জিম্মি করে এই ডাকাতির ঘটনা ঘটিয়েছে । ডাকাত দলের সদস্যরা হলেন গাছতলাঘাট এলাকার হুসেন মিয়ার ছেলে হৃদয়(২৮),একই এলাকার আবুল খায়েরের ছেলে কাউসার (৩৮),রনি(২৭) অজ্ঞাত (১৮)। চারজনের একত্রে হামলা চালিয়ে এই ডাকাতির ঘটনা ঘটিয়েছে। বাসার ভাড়াটিয়া আরিফ জানান, আজ বেলা ১২টায় ডাকাত দলের সদস্য হৃদয় আমার বাসায় আসে। সে আমার দূরসম্পর্কের আত্মীয় হয়। প্রথমে বাসায় এসে আমার সাথে খারাপ ব্যবহার হরে। পরে মুঠোফোন সে তার সহযোগী কাউসার, রনি  ও তাদের বন্ধুকে খবরদিলে তারা এসে আমাকে এলোপাথারী মারধর করে। তখন আমার স্ত্রী তাদের বাধা দিলে তাকেও মারধর করে। অন্য একটি রুমে বন্ধি করে রাখে।

এক পর্যায়ে আমার শিশু সন্তান ইমামুলকে গলায় ছুরি ঠেকিয়ে জিম্মি করে জোরপূর্বক  নগদ ১২ হাজার টাকাসহ ১ভরি স্বর্নাংলাকার, ৪টি স্মার্ট ফোন ও প্রয়োজনীয় কাগজপত্র লুট করে নিয়ে যায় । ভৈরব থানা অফিসার ইনচার্জ মোখলেছুর রহমান জানান, আজ বেলা ১২টায় ডাকাতি হয়েছে বলে একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে।হৃদয়ের নেতৃত্বে কুখ্যাত সন্ত্রাসী কাউসার ও তার সহযোগীদের নিয়ে এই ঘটনা ঘটিয়েছে। কাউসারের বিরুদ্ধে থানায় একাধিক অভিযোগ রয়েছে। সে একাধিক মামলার ওয়ারেন্টের আসামী। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।