সংস্কৃতি বিকাশে সারা দেশে কাজ করছে সরকার কমলগঞ্জে সংস্কৃতি মন্ত্রী

0
147

নকুল দেবনাথ (নান্টু), মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধি: সংস্কৃতি বিকাশে সারা দেশে কাজ করছে সরকার। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে এখন তৃনমূলেও সংস্কৃতির চর্চা হচ্ছে। আর এ লক্ষে এই এলাকার চা বাগানের সংস্কৃতি রক্ষার জন্য কমলগঞ্জে একটি সংস্কৃতি কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করা হবে বলছেন, সংস্কৃতি মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি। গত মঙ্গলবার (১১ সেপ্টেম্বর) দুপুরে মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের তেতইগাঁও মণিপুরী কালচারাল কমপ্লেক্স প্রাঙ্গণে এক অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এই কথা বলেন।

বৃহত্তর সিলেট অঞ্চলের ক্ষুদ্র জনগোষ্ঠীগুলোর ভাষা, সাহিত্য, সংস্কৃতির বিকাশ ও মাতৃভাষায় প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা চালুসহ শিশুশিক্ষার মান উন্নয়নের ক্ষেত্রে করণীয় বিষয়ক সচেতনতামূলক সম্মেলন-২০১৮’তে প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি উপস্থিত ছিলেন। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও গণস্বাক্ষরতা অভিযানের সহযোগিতায় বৃহত্তর সিলেট আদিবাসী ফোরাম ও বাংলাদেশ মণিপুরী আদিবাসী ফোরামের যৌথ উদ্যোগে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। মন্ত্রী আরো বলেন, ‘বাংলাদেশ একটি ফুলের বাগান। এ বাগানে নানা বর্ণের, নানা রংয়ের ও সুগন্ধের ফুল ফুটে। আর এ ফুলের বাগান সাজিয়েছেন বঙ্গবন্ধু কন্যা উন্নয়নের রূপকার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ বাগানের ফুল হচ্ছে বিভিন্ন জাতি, গোষ্ঠী ও সম্প্রদায়ের মানুষ জন।

বাংলাদেশে অসংখ্য ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর সম্প্রদায়ের বসবাস। এসব নৃ-গোষ্ঠীর ঐতিহ্যবাহী সংস্কৃতি বাংলাদেশকে ফুলের বাগানের মতো বিকশিত করে রেখেছে। সামনে জাতীয় সংসদ নির্বাচন। এই নির্বাচনে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্বাধীনতার পক্ষের অসম্প্রদায়িক সরকার আবারও ক্ষমতায় আসলে দেশের কল্যাণ হবে। সুষ্ঠু সংস্কৃতি চর্চা হবে। তাই উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষা করতে আবার আওয়ামীলীগকে নির্বাচিত করতে হবে। এসময় সংস্কৃতি মন্ত্রী বলেন, দেশে এখন আওয়ামীলীগের কোন বিকল্প নেই।

যেকোনো সুস্থ বুদ্ধির ও অসাম্প্রদায়িক মানুষ এমনকি আমাদের শত্রুরাও বিশ্বাস করে গত ১০ বছরে যে উন্নয়ন হয়েছে তা এর আগে কখনোই সম্ভব হয়নি। একমাত্র শেখ হাসিনার পরিকল্পনার কারণেই দেশের এই উন্নয়ন সম্ভব হয়েছে। বৃহত্তর সিলেট আদিবাসী ফোরামের সভাপতি পিডিশন প্রধানের সভাপতিত্বে এবং নারীনেত্রী বিলকিস বেগম ও বামডো সম্পাদক সাজ্জাদুল হক স্বপনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. আব্দুল আউয়াল বিশ্বাস, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষা বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. সৌরভ শিকদার, মৌলভীবাজারের জেলা প্রশাসক মো. তোফায়েল ইসলাম, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ শাহজালাল বিপিএম, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ সদস্য ও কমলগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. রফিকুর রহমান, আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটের উপ-পরিচালক ড. কানিজ ফাতেমা, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের সিলেট বিভাগীয় উপ-পরিচালক তাহমিনা খাতুন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মাহমুদুল হক, মৌলভীবাজার জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান-১ তফাদার রেজুয়ানা ইয়াসমিন সুমী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আনোয়ারুল ইসলাম, বামডো সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল মজিদ চৌধুরী। অনুষ্ঠানের শুরুতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ মণিপুরী আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সমরজিত সিংহ।