মাগুরায় শিক্ষকের প্রহারে ছাত্র হাসপাতালে

0
132

মোঃ কাসেমুর রহমান শ্রাবণ, মাগুরাঃ    শিক্ষকের প্রশ্নের উত্তর দেবার সময় তোতলিয়ে কথাবলায় মাগুরা সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের এক শিক্ষক ওই স্কুলের যায়েদ বিনজামান নামে নবম শ্রেণীর এক ছাত্রকে পিটিয়ে আহত করেছে। আহত ছাত্রকেমঙ্গলবার রাতে মাগুরা ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতালে ভর্তি করাহয়েছে।

মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি ওই ছাত্র বলেন, ‘ ক্লাসের বেতন এখনথেকে অন লাইনে দিতে হবে বিষয়টি আমি জানি কিনা মৃত্যঞ্জয় স্যারেরএমন প্রশ্নের উত্তর দেবার সময় আমি একটু তোতলিয়ে কথা বলেছিলাম।স্যার যেটিকে ব্যঙ্গ হিসাবে নিয়ে আমাকে উপর্যুপুরি পেটাতে থাকে।এসময় আমি স্যারের পা জড়িয়ে ধরলেও তিনি আরো মারতে থাকে। পরে স্যারকক্ষ ত্যাগ করলে আমি অসুস্থ অবস্থায় বাড়িতে চলে আসি।

ওই ছাত্রের বাবা মুন্সী কায়েমুজ্জামান জানান, তার ছেলে দীর্ঘদিন ধরে দুর্বলতায় ভুগছে। এ কারনে তাকে শহরের একটি স্বাস্থ্যকেন্দ্র থেকে নিয়মিত ফিজিও থেরাপি দিচ্ছেন। পাশাপাশি কোন কারনেযায়েদের ওপর মানসিক কিম্বা শারীরীক শাস্তি না দেয়ার অনুরোধ জানিয়েএ বছরের জুলাই মাসে স্কুলের প্রধান শিক্ষককের কাছে তিনি চিঠি দেন।

কিন্তু মঙ্গলবার ওই স্কুলের গণিত বিষয়ের সহকারি শিক্ষক মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরীশ্রেনীকক্ষে পাঠদানের সময় একটি প্রশ্নের উত্তর দেবার সময় তোতলিয়েকথা বলায় তাকে মারপিট করেন। মারপিটের বিষয়টি যায়েদ বাড়িতে প্রথমেগোপন রাখে। পরে রাতে প্রচন্ড জ্বরে সে অসুস্থ হয়ে পড়লে বিষয়টি বুঝতেপেরে দ্রুত মাগুরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এসময় সে ঘটনা খুলে বলে ।

এ বিষয়ে শিক্ষক মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরী বলেন,‘ওই ছাত্রের কথাবার্তাআমার কাছে ব্যঙ্গাত্বক বলে মনে হয়েছিল। একারনে তাকে শাসন করেছি।তবে সে যে অসুস্থ তা আমার জানাছিল না, একারনে আমি দুঃখিত।

এ বিষয়ে মাগুরা সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধানশিক্ষক জিয়াউল হাসান বলেন,‘ বিষয়টি আমাকে ওই ছাত্রের পরিবারের পক্ষথেকে কেউ জানান নি। এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।