জনগণ যখন রাস্তায় নামবে তখন আর নোটিশ দেয়া লাগবে না-খন্দকার মোশাররফ

0
44

সাজ্জাদ হোসেন, স্টাফ রিপোর্টারঃ    রোববার বিকেলে নগরীর ভুবনমোহন পার্কে বিএনপি’র রাজশাহী বিভাগীয় মহাসমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, জনগণ ও জনগণের নেত্রী খালেদা জিয়াকে বাইরে রেখে ২০১৪ সালের মতো একতরফা নির্বাচন করার ষড়যন্ত্র করছে সরকার।

তিনি আরও বলেন, বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া ছাড়া আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন করতে দেয়া হবে না।

সমাবেশে বিএনপির নেতারা খালেদার মুক্তি ও দেশের গণতন্ত্র রক্ষা একইসূত্রে গাঁথা বলেও মন্তব্য করেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, জনগণ যখন রাস্তায় নামবে তখন আর নোটিশ দেয়া লাগবে না। জনগণ রাস্তায় নেমে দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে তার নেতৃত্বে নির্দলীয় নিরপক্ষে সরকার কায়েম করে. এই সংসদ ভেঙে দিয়ে এবং সেনাবাহিনী মোতায়েন করে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন করবে।

কোটা সংস্কার আন্দোলনের বিষয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য বলেন, আমরা কেউ জানতাম না, হঠাৎ করে একটা আন্দোলন হলো। কোটা সংস্কারের দাবিতে সাধারণ ছাত্ররা রাস্তায় নেমে গেল। আন্দোলনের তোড়ে শেখ হাসিনা কোটা পদ্ধতি বাতিল করতে বাধ্য হলেন। আগামী দিনে গণতন্ত্রের আন্দোলন, জনগণের অধিকারের আন্দোলনও সেই রকম হবে। জনগণ যখন রাস্তায় নামবে, তখন তারা খালেদা জিয়াকেও এভাবেই মুক্ত করবে। সেই আন্দোলনে রাজশাহীবাসীকে প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানান তিনি।

আগামীতে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দিয়ে বিএনপি’র এই শীর্ষ নেতা বলেন, বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পরামর্শে আমরা দলের নেতারা সংগঠন পরিচালনা করছি। তারেক রহমানের নির্দেশে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করছে বিএনপি। আগামীতে যদি সরকারের বোধগম্য না হয়, তবে কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে।

বিএনপির জ্যেষ্ঠ এই নেতা বলেন, খালেদা জিয়া, ২০ দল ও বিএনপি নেতাদের বাইরে রেখে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির মতো আরেকটি নির্বাচন করতে চায় এই সরকার। কারণ তারা জনগণকে ভয় পায়। তারা ক্ষমতায় এসে শেয়ার বাজার লুট করে মানুষকে পথে বসিয়েছে। আজকে ১০ টাকার পরিবর্তে ৬০ টাকায় মোটা চাল কিনতে হচ্ছে। জনগণের ওপরে শেখ হাসিনার কোনো আস্থা ও বিশ্বাস নেই। তাই সমাবেশে হাত উঁচিয়ে তিনি নৌকায় ভোট চান।

রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ও সিটি মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য দেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, মির্জা আব্বাস, নজরুল ইসলাম খান প্রমুখ।

সমাবেশে নগর বিএনপি’র নেতাকর্মী ছাড়াও রাজশাহী বিভাগের আট জেলার বিএনপি’র নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।