তালুকদার পাড়ার একজন নিঃস্বার্থহীন নিবেদিত পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা প্রেমির গল্প

0
1144

মিঠুন সাহা পানছড়ি প্রতিনিধিঃ

খাগড়াছড়ি পার্বত্যজেলা তালুকদার পাড়ার একজন নিঃস্বার্থহীন নিবেদিত পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা প্রেমির গল্প পড়ুন একজন মানুষের হৃদয়ে সৌন্দর্যের প্রতি,পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার প্রতি কতটুকু ভালোবাসা থাকলে, কিংবা এটাকে হৃদয়ে কতটুকু লালন করলে তা একটা নেশা হিসাবে পরিণত হতে পারে।পৃথিবীতে এমন কোন মানুষ নেই যারা সৌন্দর্যকে,পরিষ্কার পরিচ্ছতাকে ভালোবাসে না।কিন্তু সৌন্দর্যকে ভালোবেসে সমাজের জন্য কয়জনইবা অবদান রাখে।কয়জনইবা নিজের এলাকার পরিবেশ সুন্দর এবং পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে কাজ করে। কিন্তু সমাজে কিছু কিছু ব্যতিক্রমি মানুষ থাকে যারা অন্যের আশায় না থেকে নিজের সর্বোচ্চটূকু দিয়ে নিজের ময়লা আবর্জনা বেষ্টিত এলাকা পরিষ্কার করার কাজে নেমে যাই।তারা মনের সৌন্দর্যকে মনের মধ্যে সুপ্ত না রেখে অকাতরে নিরবে নিবৃত্তিতে ধুপের মত করে বিলিয়ে দিতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করে।বলতে গেলে এটা তাদের একটা নেশা,এটা করেই তারা মনের মধ্যে শান্তি খুঁজে পায়।

সমাজের জন্য এইসব নিবেদিত মানুষেরা কোন কিছু পাওয়ার আশায় করে না।কিংবা কোন নাম সুনামের জন্য নয়।তারা প্রকৃতপক্ষে মনের সৌন্দর্য থেকে পরিবেশকে সুন্দর রাখতে কাজ করে যাই।তারা চাই তাদের এলাকা তাদের ঘরের মতোই পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকুক।তাই ঝাড়ু হাতে নিয়ে বেড়িয়ে পড়ে প্রতিদিন সকালে। তাদের জন্যই একটি এলাকা সুন্দর হয়ে উঠে।সমাজ তাকে কি দিল আর না দিল তাতে তার কিছু আসে যাই না।কিন্তু তিনি সমাজকে তার ভালোবাসা দিতে কার্পণ্য বোধ করেনা। খাগড়াছড়ি জেলার পানছড়ি উপজেলার তালুকদার পাড়া এলাকার এমনি একজন ব্যতিক্রমী মানুষ এবং পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা প্রেমি আফ্রুচি মারমা।ওনাকে আমি কয়েক বছর ধরে ময়লা আবর্জনা বেষ্টিত এলাকাকে সুন্দর রাখতে,পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে ঝাড়ু হাতে,নিঃস্বার্থহীন ভাবে কাজ করতে দেখে আসছি।খুব ছোট বেলা থেকে দেখে আসছি সবাই যখন গভীর ঘুমে আচ্ছন্ন,তখন ওনার মত পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা প্রেমিরা জেগে উঠেন নিজের এলাকা পরিষ্কার করতে রাস্তার এপাশ কিংবা ওপাশ ওনার যতুটুকু শক্তি সামর্থ্য থাকে সবটাতে ওনি ওনার নিপুণ হাতে তা পরিষ্কার করেন।ঝাড়ু হাতে নিজের ঘরের মত করে পরিষ্কার করেন ওনি।শীতের সকাল কিংবা বর্ষাকাল কোন সময় এই কাজ থেকে তিনি বিরত থাকেন না।রাস্তার পাশে বেড়ে উঠা আগাছাগুলি ওনি কাঁচি দিয়ে কেটে পরিষ্কার করেন।কোথাও একটা ছিটেফোঁটা কাচরা কিংবা ধূলিকণা থাকলে তাও তিনি নিখুঁত ভাবে পরিষ্কার করেন।ধূলা মাখা এবং আবর্জনা দ্বারা বেষ্টিত এলাকাটি ওনার নিপূন হাতে  সুন্দর ও ঝকঝকে হয়ে উঠে।ওনার দৈনন্দিন রুটিনের একটি কাজ চারদিকের পরিবেশ পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখা।দেখতে ভীষণ ভালো লাগে।ওনার জন্যই আমরা একটি সুন্দর পরিবেশ পায়।

আমাদের তালুকদার পাড়ার বেশির ভাগ মানুষ ব্যবসায়ী।তারা প্রতিদিন এই নিবেদিত প্রেমির পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করা পথেই বাজারে যাই।তাছাড়া অনেক স্কুল কলেজ ও প্রাইভেট মুখী শিক্ষার্থীরা ওনার পরিচ্ছন্ন পথে আসা যাওয়া করে।আমিও প্রায় ৬টার সময় এই রাস্তা দিয়ে টিউশনি করতে বাজারে যাই।আর তখনই এই নিবেদিত প্রেমির ধূলামাখা বেষ্টিত রাস্তা ঘাট নিবিড় মনোযোগ সহকারে পরিষ্কার করতে দেখতে পাই। ওনার সাথে আলাপ কালে যখন জানতে চাই।আপনি কেন প্রতিদিন রাস্তা পরিষ্কার করেন??এতে আপনার কি লাভ? ওনি জানাইঃ আমি প্রতিদিন সকালে ঘুম থেকে উঠে আমার বাড়ীর উঠান পরিষ্কার করি।এটা আমার নিয়মিত অভ্যাস।খুব  ছোটবেলা থেকে এটা আমি করছি।যখন বাড়ি থেকে বের হই।দেখি আমার এলাকার রাস্তাঘাট সব সময় নোংরা হয়ে থাকে।এতে আমার খুব খারাপ লাগে,কারণ এই রাস্তা দিয়ে আমি প্রতিদিন কাজে যাই।তাই কারো আশায় অপেক্ষা না করে নিজেই নেমে যাই রাস্তা পরিষ্কার করতে।আর বিশেষ করে কোন কাজেই আমি লজ্জাবোধ করিনা।আর আমি মনে করি সবাই যদি নিজের এলাকা নিজে পরিষ্কার রাখে।তাহলে রাস্তাঘাট সব সময় পরিষ্কার থাকে।এতে দেখতেও ভালো লাগে। কথায় বলে মন সুন্দর যার সেইতো সমাজ এবং দেশ পরিষ্কার রাখে।ওনি অসম্ভব রকমের একজন ভালো মনের মানুষ।অনেক সৎ এবং নির্ভীক। ওনার নির্ভীক সাহসের গল্প ছড়িয়ে আছে আমাদের এলাকায়।সত্য কথা বলতে তিনি কাউকে ভয় পান না।ওনার এই নিবেদিত মন-মানসিকতা আমাদের তালুদারপাড়ার সব শ্রেণির পেশার মানুষ সন্তুষ্ট আমি মনে করি ওনি এই সমাজকে,পরিবেশকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে একজন দিক নির্দেশক ও আলোর দিশারী।