মির্জা ফখরুলের কোনো ফেসবুক আইডি নেই-রিজভী

0
204

ঢাকা প্রতিনিধিঃ   বৃহস্পতিবার (১১ অক্টোবর) দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, বিএনপিকে ধ্বংস করে এক-তরফা নির্বাচনের জন্যই তারেক রহমানসহ বিএনপি নেতাদের বিরুদ্ধে রায় দেয়া হয়েছে।

তিনি দাবি করেন, রায়কে ঘিরে সারাদেশে দলের অসংখ্য নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

গতকাল বুধবার রায় ঘোষণার পর থেকে দেশব্যাপী বিএনপির নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করা হচ্ছে অভিযোগ তুলে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব বলেন, দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের নামে ভুয়া ফেসবুক আইডি খুলে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মিথ্যা প্রচারণা চালানো হচ্ছে। মির্জা ফখরুলের কোনো ফেসবুক আইডি নেই বলে এ সময় নিশ্চিত করেন রিজভী।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘আমরা আশঙ্কা করছিলাম, যে ফরমায়েশি রায় একটি হবে এবং এখানে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানকে শাস্তি দেবেন অন্যায়ভাবে। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার এই ফরমায়েশি রায়ের প্রতিবাদে আজকে থেকে সারাদেশে বিক্ষোভ মিছিল করা হবে।’

এ সময় তিনি আরও বলেন, ‘২১ আগস্ট বোমা হামলা মামলায় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ ও উচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের ফাঁসানোর জন্য রাষ্ট্রযন্ত্রকে কি নির্মমভাবে ব্যবহার করা হয়েছিল, সে সম্পর্কে আপনাদেরকে ইতোপূর্বে অবহিত করেছি। হাত-পায়ের নখ তুলে নিয়ে অকথ্য শারীরিক নির্যাতনের মাধ্যমে সম্পূরক জবানবন্দি নেয়া হয়েছিল।

২১ আগস্ট হামলা মামলায় জোর করে মুফতি হান্নানের জবানবন্দি নেওয়া হয়েছে, কিন্তু তাঁর জবানবন্দি প্রত্যাহারের আবেদন বিষয়ে আদালত কোনো আদেশ দেননি বলে সংবাদ সম্মেলনে জানান রিজভী আহমেদ।

আওয়ামী লীগের সমাবেশে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় হয়েছে গতকাল বুধবার। রায়ে সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন বিশেষ ট্রাইব্যুনাল। এ ছাড়া বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ ১৯ জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন। ৪৯ আসামির মধ্যে বাকি ১১ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেওয়া হয়েছে। তারেক রহমান এখন যুক্তরাজ্যের লন্ডনে অবস্থান করছেন।

রাজধানীর নাজিমুদ্দিন রোডে পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগারের পাশে স্থাপিত ঢাকার ১ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক শাহেদ নূর উদ্দিনের আদালত এ রায় দেন।

রিজভী বলেন, ‘এ বিষয়ে গত ২৮-০৯-২০১১ তারিখে প্রথম আলো পত্রিকায়- ‘সম্পূরক জবানবন্দি প্রত্যাহারের আবেদন মুফতি হান্নানের’ শীর্ষক সংবাদ প্রকাশিত হয়েছিল। সেখানে বলা হয়েছে- ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় তারেক রহমান, লুৎফুজ্জামান বাবরসহ বিএনপি-জামায়াত নেতাদের জড়িয়ে দেয়া স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রত্যাহারের আবেদন করেছেন মুফতি হান্নান। তিনি স্বেচ্ছায় আদালতে এ ধরনের কোনো জবানবন্দি দেননি বলে আদালতকে জানিয়েছিলেন।’