মিরসরাই ধুমে ইউপি সদস্যের নেতৃত্বে বসতবাড়ীতে হামলা

0
81

ইকবাল হোসেন জীবন, মিরসরাইঃ   মিরসরাইয়ে চাঁদা না দেয়ায় ধুম ইউনিয়ন পরিষদের ইউপি সদস্যের নেতৃত্বে বসতবাড়িতে হামলার অভিযোগ উঠেছে। বুধবার (১৭ অক্টোবর) সকাল নয়টা উপজেলার ধুম ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ডের উত্তর মোবারকঘোনা এলাকার কৃষক দাউদুল ইসলামের বাড়িতে এই ঘটনা ঘটেছে।

এ সময় মুরাদ উদ্দিন পিন্টু নামে এক সন্ত্রাসীকে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী। এই ঘটনায় হামলার শিকার দাউদুল ইসলাম জোরারগঞ্জ থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছে।

ভূক্তভোগী দাউদুল ইসলাম অভিযোগ করেন, ইকবাল মেম্বার ও পিন্টু কোন কারণ ছাড়া আমার কাছে চাঁদা দাবী করে আসছে। গত মঙ্গলবার দুপুরে চাঁদার জন্য বাড়িতে এসেছিলো। চাঁদা না পেয়ে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে চলে যায়। পুনরায় বুধবার সকালে বাড়িতে এসে চাঁদা দাবী করে। এসময় বাড়িতে ভাংচুর করে। বাঁধা দিলে আমার স্ত্রী ও বোনকে মারধর করে। এসময় আশপাশের লোকজন ছুটে এসে তাদের উদ্ধার করে সন্ত্রাসী পিন্টুকে আটক করে থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। এসময় ইকবাল মেম্বার দৌড়ে পালিয়ে যায়।

তিনি আরো অভিযোগ করেন, ইকবাল মেম্বারের নেতৃত্বে ১ নং ওয়ার্ডে র্দীঘদিন ধরে মাদক ব্যবসা, চাঁদাবাজী ছিনতাইয়ের মতো ঘটনা ঘটেছে। কেউ তাদের বিরুদ্ধে মুখ খোলার সাহস পায়না। মোটর সাইকেল চুরির মামলায় পিন্টু দীর্ঘ সময় কারাভোগের পর জামিনে বের হয়ে পুনরায় বেপরোয়া হয়ে উঠেছে।

এই বিষয়ে ধুম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল খায়ের মোঃ জাহাঙ্গীর ভূঁইয়া বলেন, ভূক্তভোগী দাউদুল ইসলাম বিষয়টি আমাকে অবহিত করেছেন। আটককৃত পিন্টু খুব খারাফ। তার বিরুদ্ধে অনেক অভিযোগ রয়েছে। ভূক্তভোগী পরিবার ইকবাল মেম্বারের বিষয়টি আমাকে বলেনি। হয়তো আমার পরিষদের সদস্য হওয়ার কারণে এড়িয়ে গেছে। যে প্রকৃত অপরাধী তাকে অবশ্যই আইনের আওতায় আনতে হবে।

মেম্বারের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসার অভিযোগ সম্পর্কে তিনি বলেন, এমনি বললে তো হবে না। তথ্য প্রামাণ সহ দিতে হবে।

জোরারগঞ্জ থানার সেকেন্ড অফিসার আবেদ আলী বলেন, বাড়িতে হামলার ঘটনায় পিন্টু নামের একজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। এই ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।