পানছড়িতে দুই আঞ্চলিক সংগঠনের বিরোধ: দুর্ভোগ প্রান্তিক পাহাড়ি ও ব্যবসায়ীদের

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি: সপ্তাহে প্রতি রবিবার পানছড়ি উপজেলা বাজারের হাটবার।  একমাত্র বাজারটিতে হাটবারে বিভিন্ন সম্প্রদায়ের হাজার হাজার লোকের সমাগম ঘটে। জানাযায় গত প্রায় একমাস যাবৎ  পাহাড়ের আঞ্চলিক দুটি দলের বিরোধের জেরে বাজারটিতে লোক সমাগম হয়না। ফলে পানছড়ির প্রান্তিক পাহাড়ি ও বাজার ব্যবসায়ীরা চরম দুর্ভোগের স্বীকার হচ্ছে। ১০ জুন রবিবারে সরেজমিনে বাজারে দেখা যায় অনেকটাই জনসমাগম বিহীন হাট।  পাহাড়ী সম্প্রদায়ের কোন ক্রেতা-বিক্রেতা বাজারে দেখা যায়নি, তবে গুটিকয়েক বাঙ্গালী সম্প্রদায়ের ক্রেতা-বিক্রেতা রয়েছে। হাটে লোকজন না আসায়  নিরীহ প্রান্তিক পাহাড়ীদের ভোগান্তির পাশাপাশি দুর্ভোগ পোহাচ্ছে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। গ্রামীন ব্যাংক, পদক্ষেপ, ব্র্যাক, আশাসহ বিভিন্ন এনজিও সংস্থা থেকে ঋন নিয়ে কিস্তি পরিশোধে বিপাকে পড়েছে বাজার ব্যবসায়ীরা। তবে কি কারণে পানছড়ি বাজারের এই বেহাল অবস্থা এই ব্যাপারে কেউ কিছু বলতে নারাজ। পানছড়ি বাজার উন্নয়ন কমিটি সূত্রে জানা যায়, চার সপ্তাহ ধরে পাহাড়িরা বাজারে না আসায় বাজার জমছে না। যার ফলে ব্যবসায়ীরা চরম ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তারা বসে এটার একটা সুরাহা করে জেলার প্রাচীনতম বাজারটিকে রক্ষা করা দরকার। অনেকের দাবী উপজেলার প্রধান সড়কের বিভিন্ন এলাকায় এখন বাজার ফান্ডের অনুমতি ছাড়া অবৈধভাবে হাট জমে উঠা শুরু করেছে। বাজার ফান্ডের কোন ভুমিকা এতে দেখা যাচ্ছেনা।এ ব্যাপারে বাজার ফান্ডসহ সকলকে ভূমিকা রাখা দরকার বলে এলাকাবাসী মনে করেন।  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ আবুল হাশেম জানান, বাজার বর্জন একটি গর্হিত কাজ। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রেখে কিভাবে বাজারের পরিবেশ ফিরিয়ে আনা যায় সে ব্যাপারে কাজ চলছে।