খালেদা জিয়ার কিছু হলে পরিণতি ভয়াবহঃ নজরুল ইসলাম খান

0
591

মোঃ ইব্রাহিম হোসেন, ঢাকা প্রতিনিধিঃ বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, অনেক ধৈর্য্য ধারণ করেছি। বন্দী মায়ের কথায় শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেছি। সেখানেও রেহাই পায়নি। এখন আর পিছনে তাকানোর কোন সুযোগ নেই। খালেদা জিয়ার কিছু হলে পরিণতি ভয়াবহ হবে। অবিলম্বে পিজিতে নয় ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসার সুযোগ দেয়া হোক। দেশ আজ এক ব্যক্তির কাছে বন্দী হয়ে রয়েছে। তার ইচ্ছায়-অনিচ্ছায় প্রশাসনিক সব বিভাগ নড়েচড়ে বসেন। তিনি চাইছেন না বলেই জামিন পাওয়ার মত মামলা থাকা সত্ত্বেও দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এখন কারাগারে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন। আমরা আর কারো কাছে মুক্তি চাইবো না। আন্দোলনের মাধ্যমেই খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আনবো। তিনি আরো বলেন, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আদর্শ থেকে আমরা দূরে সরে গেছি। আর এ কারণেই আমাদের নানা দুর্বিসহ জীবন কাটাতে হচ্ছে। শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান যেমন দেশকে ভালবাসতেন তেমনি দেশের মানুষকেও ভালবাসতেন। তার মৃত্যুর ৩৭ বছর পরেও কেন আমরা গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করি। কারণ তিনি আমাদের জন্য জাতীয়তাবাদ ও বিএনপি উপহার দিয়ে গেছেন। বাংলাদেশে কোটি কোটি মানুষ বিএনপি ও জাতীয়তাবাদকে বিশ্বাস করে। বিশ্বাস করে শহীদ জিয়ার রেখে যাওয়া ১৯ দফা। জিয়া নাগরিক ফোরাম জিনাফ এর উদ্যোগে শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৭তম শাহাদাত বার্ষিকী ও দেশনেত্রীর সুচিকিৎসার দাবিতে আজ ১০ জুন ২০১৮ রোজ রবিবার বিকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। সংগঠনের সভাপতি লায়ন মিয়া মোহাম্মদ আনোয়ারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক কে এ জামানের পরিচালনায় আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, বিএনপির প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেন, বিএনপির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক এড. আব্দুস সালাম আজাদ, নির্বাহী সদস্য আবু নাসের মোহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, এনডিপি’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, কল্যাণ পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান সাহিদুর রহমান তামান্না, গণসাংস্কৃতিক দলের সভাপতি এস.আল মামুন, ড. কাজী মনিরুজ্জামান মনির, আলতাফ হোসেন সরদার, মো. ইবরাহিম হোসেন প্রমুখ। আলোচনা শেষে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সুস্থ্যতা কামনায় বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।