নওগাঁয় চিপ্স নেয়াকে কেন্দ্র করে একই পরিবারের মা ও ছেলে পিটিয়ে জখম করছে স্থানীয় দূবৃর্ত্তরা ।

0
166

আশরাফুল নয়ন,  নওগাঁঃ নওগাঁয় বাচ্চার চিপ্স নেয়াকে ঘটনাকে কেন্দ্র করে দোকানী সহ একই পরিবারের মা ও ছেলে পিটিয়ে জখম করছে স্থানীয় দূবৃর্ত্তরা। গতকাল দুপুর ২টার দিকে নওগাঁ শহরের পার-নওগাঁ খলিফাপাড়া বউবাজার মহল্লায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুর ২টার দিকে মুদি দোকানদার একরামুল হক (৫৫) দোকানে কেনাবেচা করছিল। এমন সময় সোয়াইব হোসেন (৬) নামে এক বাচ্চা দোকান থেকে টাকা না দিয়ে চিপ্স নিয়ে যাচ্ছিলেন । এসময় একরামুল হক বাচ্চার কাছ থেকে চিপসটি নিয়ে নেয়। পরে বাচ্চাটির অভিভাবক টাকা দিয়ে সে চিপ্সটি নিয়ে যায়। তবে কিছুক্ষণ পর এঘটনাকে কেন্দ্র করে বাচ্চাটির বাবা দুলু (৪০), দুলাল (৩২) ও স্বপন (৩০) সহ ৭/৮ জন দূবৃর্ত্তরা ঐ দোকানদারের উপর হামলা চালিয়ে বেধর মারপিট করে দুই হাতের কব্জির উপর সহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় জখম করে।
এ সময় একরামুলের স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন ও তার ছেলে শাকিরুজ্জামান শুভ এগিয়ে আসলে তাদেরও পিটিয়ে গুরুতর আহত করে এবং দুলু নিজেই থানায় ফোন দিয়ে আহত দোকানীকে তার ছেলেকে মারধর করেছে বলে উল্টো অভিযোগ করে পুলিশে ধরিয়ে দেওয়ার কৌশল করে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে স্থানীয়দের নিকট হতে বিষয়টি জেনে ও দোকানীর গুরুত্বর অবস্থা দেখে হাসপাতালে ভর্তি করার পরামর্শ দেয়।এরপর স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে নওগাঁ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে।
দোকনীর স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিন বলেন,বাচ্চাটি কাউকে কিছু না বলে দোকান হতে চিপস নিয়ে যাচ্ছিল। আমার স্বামী চিপসটি শুধু বাচ্চাটির কাছ হতে নিয়ে টাকা আনতে বলেছে। এজন্য দুলু ও তার শালা দুলাল ভাড়া করা লোকজন নিয়ে এসে আমার স্বামী,ছেলে মেয়ে ও আমাকে অন্যায় ভাবে যে মারধর করেছে আমি তার ন্যায বিচার চাই। দুলু ও তার লোকজন হাসপাতাল এসে তুলে নিয়ে যাওয়ার হুমকি দিচ্ছে। আমরা এখন নিরাপত্ত্বাহীনতার মধ্যে আছি।
নওগাঁ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি) আব্দুল হাই বলেন, এ বিষয়ে উভয় পক্ষের অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।