ড. কামাল পাগল হয়ে গেছেন

0
107

 

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, ড. কামালের কোনো নীতি নাই। তিনি আজ বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সাথে হাত মিলিয়েছেন বঙ্গবন্ধুর পররাষ্ট্রমন্ত্রী হওয়ার পরও।

গ্রেনেড হামলা করে যারা প্রধানমন্ত্রীকে মারতে চেয়েছে তাদের সাথে যোগ দিয়েছেন। নীতি হারিয়ে ড. কামাল এখন পাগল মতো আচরণ করছেন। মনে হয় তিনি পাগল হয়ে গেছেন। পুলিশকে বলে জানোয়ার। সাংবাদিকদের বলে খামোশ। তার কথাবার্তা শুনলে মনে হয় তিনি একজন পগল।

বোরহানউদ্দিন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জসিম উদ্দিন হায়দারের সভাপতিত্বে আজ বুধবার বিকেলে বোরহানউদ্দিন আব্দুল জাব্বার সরকারি কলেজ রোডের ভোলা ২ আসনের আওয়ামী লীগ প্রার্থী আলী আজম মুকুল এর পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তোফায়েল আহমেদ এসব কথা বলেন।

এ সময় পথসভা যেনো জনসভায় রূপান্তরিত হয়। বোরহানউদ্দিনের ৯টি ইউনিয়ন ও একটি পৌড়সভার কর্মী ও নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী আরো বলেন, বিএনপির কোনো নেতা নাই। ড. কামাল বিএনপির ভাড়াটিয়া নেতা। কারণ তাদের কোনো নেতা নেই।

তোফায়েল আরো বলেন, এই ভোলা ২ আসনের সাবেক সাংসদ হাফিজ ইব্রাহিম এ আসনকে সন্ত্রাসের জনপদে রূপ দিয়েছিল। এই হাফিজ নিজে কায়কোবাদকে হত্যা করে আমাকে, জ্যাকব, মুকুল, মনির ও মিলনকে আসামি করছে। হাফিজ তার ভাই মামুন এর ক্ষমতা ব্যবহার করে আমিসহ ওদেরকে হত্যা করতে চেয়েছিল। আমাদের পরিবারের ওপর কম অত্যাচার করেনি, আমরা তার কোনো প্রতিশোধ নেইনি। কারণ আমরা জনগণের জন্য রাজনীতি করি।

বিএনপির প্রচার-প্রচারণায় কেউ বাধা দিচ্ছে না উল্লেখ করে তিনি, বলেন ২০০১ সালে বিএনপি ক্ষমতায় আসার পর ব্যাপক অত্যাচার নির্যাতন চালিয়েছে। সেই অত্যাচার নির্যাতন সম্পর্কে মানুষ তাদেরকে প্রশ্ন করবে। সে কারণে মানুষের ভয়ে বিএনপির প্রার্থীরা এখন প্রচারে নামতে পারে না। তাদের পরাজয় সুনিশ্চত। বিএনপির পরাজয়ও কেউ ঠেকাতে পারবে না। মেজর হাফিজ ও হাফিজ ইব্রাহিম এমন কোনো অত্যাচার নেই তার তা ভোলা ৩ ও ২ আসনে করে নি।

বাণিজ্যমন্ত্রী আরো বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশে ব্যাপক উন্নয়ন করেছে। প্রতিটি গ্রামকে শহর করেছে। আমাদের ইশতেহারে তা রেখেছি। তরুণদের কর্মসংস্থান হবে আবার আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসলে। তিনি আরো, বলেন শেখ হাসিনা আর যদি ৫ বছর সময় পান তা হলে বোরহানউদ্দিন ও ভোলার মতো বাংলার প্রতিটি গ্রামের ঘরে ঘরে গ্যাস পৌঁছে দেওয়া হবে।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে ভোলা ২ আসনের সাংসদ আলী আজম মুকুল বলেন, ভোট আপনাদের আমানত। এ আমানতকে হাফিজ ইব্রাহিমের সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রক্ষা করতে সকাল থেকে ভোট কেন্দ্রে পাহাড়া দিতে হবে। নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করে বিজয়ের মালা আপনাদের গ্রহণ করতে হবে। আমি নেতা হতে আসিনি। আপনাদের ভাই হিসেবে সকলের পাশে থাকতে চাই।