চাঁপাইনবাবগঞ্জে সেরিনা হত্যা মামলায় নারী সহ দুই জনের মৃত্যুদণ্ড

0
264

এস এম সাখাওয়াত জামিল দোলন,চাঁপাইনবাবগঞ্জঃ  চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে চাঞ্চল্যকর সেরিনা বেগম হত্যা মামলা রায়ে এক নারীসহদুইজনকে মৃত্যুদ-াদেশ ও প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানার আদেশদিয়েছেন আদালত।

রোববার দুপুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ শওকতআলী এ রায় প্রদাণ করেন। দ-প্রাপ্ত আসামিরা হলেন  চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার মোহনবাগ এলাকারমৃত কান্তু মন্ডলের ছেলে আব্দুল মান্নান (৪৪) ও শ্যামপুর চৌধুরীপাড়া এলাকার দাউদআলীর মেয়ে সুফিয়া বেগম (৩৫)। এদের মধ্যে সুফিয়া বেগম পলাতক রয়েছেন। তবেঅপরাধ প্রমাণিত না হওয়ায় ওই মামলার অপর আসামী শিবগঞ্জের পিঠালীতলা এলাকারমৃত তাইনুস আলী মন্ডলের ছেলে আবুল বাসার (৪০) কে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা জজ আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি)অ্যাডভোকেট আঞ্জুমান আরা মামলার বিবরণ দিয়ে জানান, দেওয়ান জাইগির গ্রামেরস্বামী পরিত্যাক্তা তালাকপ্রাপ্তা নারী সেরিনা বেগম শিবগঞ্জের বিভিন্ন বাসাবাড়িতে ঝি এর কাজ করতো।

কাজের সূত্র ধরেই তার পরিচয় হয় আসামি মান্নানেরদ্বিতীয় স্ত্রী সুফিয়া বেগমের সাথে। একপর্যায়ে ব্যক্তিগত দ্বন্দ্বের জেরে ২০১৪ সালের১০ সেপ্টেম্বর দিবাগত রাতে আসামি আব্দুল মান্নান তার স্ত্রী সুফিয়ার সহায়তায়সেরিনা বেগমকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে সেলিমাবাদের ভিখু মাষ্টারের আম বাগানেডেকে নিয়ে যায়। পরে সেখানেই তাকে ধর্ষণের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করে মরদেহগাছে ঝুলিয়ে রাখে যা পরের দিন ১১ সেপ্টেম্বর সকালে শিবগঞ্জ থানার পুলিশ উদ্ধারকরে।

এ ঘটনায় ১৫ সেপ্টেম্বর সেরিনার ছেলে আরিফ হোসেন বাদি হয়ে শিবগঞ্জথানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।মামলার তদন্ত শেষে শিবগঞ্জ থানার এসআই লুৎফর রহমান ২০১৫ সালের ৩১ মে মান্নান,সুফিয়া ও বাসারকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। পরে ১৩ জনস্বাক্ষীর স্বাক্ষ্য ও যুক্তি তর্ক শেষে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক শওকতআলী রবিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় এই মামলা রায় প্রদাণ করেন ।