বঙ্গবন্ধুর শাহদাৎ বার্ষিকীতে যারা ভূয়া জন্মদিন পালন করে তাদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের কর্ম-সম্পর্ক থাকার কোন সুযোগ নেই-কাদের

0
64

সোহেল ঢাকা প্রতিনিধিঃ  আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর শাহদাৎ বার্ষিকীতে যারা ভূয়া জন্মদিন পালন করে তাদের সঙ্গে আওয়ামী লীগের কর্ম-সম্পর্ক থাকার কোন সুযোগ নেই। তিনি বলেন, বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার ৫ টি জন্মদিন। আগে তারা ঠিক করুক কোনটি তার জন্মদিন। তারপর ভেবে দেখা হবে তাদের সঙ্গে আমাদের সংলাপ হবে কি – হবে না।

সেতুমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর শাহদাৎ বার্ষিকীতে তারা (বিএনপি) খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবি করে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল করবে। তাদের এ ধরনের কর্মসূচীই প্রমান করে তারা জাতীয় শোক দিবসে ভূয়া জন্মদিন পালন থেকে সরে আসেনি।

ওবায়দুল কাদের আজ বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) মিলনায়তনে স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিপ)’র উদ্যোগে ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

স্বাচিপের সভাপতি অধ্যাপক ডা. ইকবাল আর্সনালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ডা. আ ফ ম রুহুল হক, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাবেক উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. মোদাচ্ছের আলী, বিএসএমএমইউ’র উপাচার্য অধ্যাপক ড. কনক কান্তি বড়–য়া, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম ও স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি গত নয় বছরের নয় মিনিটও আন্দোলন করতে পারে নি। আর সেই বিএনপির নেতারা বলছেন আওয়ামী লীগ বিএনপি আতঙ্কে রয়েছে। তারা (বিএনপি) আন্দোলন করতে ব্যর্থ হয়ে কোটা আন্দোলনের ওপর ভর করেছিল। সেখানে তারা ব্যর্থ হয়ে শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়কের আন্দোলনের ওপর ভর করেছিল। সে আন্দোলনেও তারা ব্যর্থ হয়ে এখন বিদেশীদের কাছে নালিশ করে দেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করার ষড়যন্ত্র করছে।

নির্বাচনের আগে বিএনপির স্বল্পকালীন আন্দোলনের পরিকল্পনার বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, দিনক্ষণ ঠিক করে পৃথিবীর কোথাও কোন আন্দোলন যেমন হয় নি, বাংলাদেশেও হবেনা । তারা ঈদের পর, শিক্ষাথীদের পরীক্ষার পর ও রমজানের পর অনেকবার আন্দোলন করার হুমকি দিয়েছে। কিন্তু তারা নয় বছরেও যেমন কোন আন্দোলন করতে পারে নি, তেমনি নির্বাচনের আগেও তারা দিনক্ষণ ঠিক করে কোন আন্দোলন করতে পারবে না।