একটা শীতের কাপড়ের ব্যবস্থা করি দেও বাবা!

0
21

 

ক্রমাগত তাপমাত্রা হ্রাস পেয়ে মৃদু শৈত্য প্রবাহে বিপর্যস্থ হয়ে পড়েছে কুড়িগ্রামের জনজীবন। জেলার সর্বনিন্ম তাপমাত্রা বিরাজ করছে ৯ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

এ অবস্থায় ঘন কুয়াশার সাথে হিমেল হাওয়ায় ভোগান্তি বাড়ছে মানুষের। গরম কাপড়ের অভাবে চরম দুর্ভোগে পড়েছে শিশু-বৃদ্ধসহ শ্রমজীবী ও ছিন্নমুল মানুষেরা। দিনের বেলায় সুর্যের দেখা না মেলায় বেড়েই চলেছে শীতের তীব্রতা।

কুড়িগ্রামের রাজারহাট কৃষি আবহাওয়া পর্যবেণ অফিস সুত্রে জানা গেছে বৃহস্পতিবার জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে ৯ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা গতকালের চেয়ে আরও ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস কম।

দুই একদিনের মধ্যে তাপমাত্রা হ্রাস পেয়ে শীতের তীব্রতা আরও বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া পর্যবেণ অফিস।

কুড়িগ্রামের ভিতরবন্দে বসবাস করা মধ্যবয়সী কছিরন বেগম  এ প্রতিবেদককে ছবি তুলতে দেখে এগিয়ে এসে এ কথা বলেন।

পাতলা একটা সুতির কাপড় তার পরনে। শীতে ঠকঠক করে কাঁপছিলেন। অদূরেই সাত বছর বয়সী একটি মেয়েকে পাতলা একটা জামা গায়ে জ্বলন্ত উনুনের (চুলো) পাশে বসে গা পোহাতে দেখা যায়।

মেয়েটির ছবি তুলতে গেলে রান্নারত আরেক নারী বলে ওঠেন, ‘ছবি তুললে কী হইব, পারলে আমার মাইয়ার লাইগা একটা শীতের কাপড়ের ব্যবস্থা করেন।