দেবীগঞ্জে শীতের কাপড় কিনতে ফুটপাতের দোকান গুলোতে ক্রেতাদের উপচেঁ পড়া ভিড়

0
32

কাজী সাইফুল, দেবীগঞ্জ, পঞ্চগড়:

টানা তিন দিনের তীব্র শীতল হিমেল হাওয়া ও মৃদু শৈত্য প্রবাহে জনজীবনস্থবির হয়ে পরেছে পঞ্চগড় জেলার নদীমাতৃক অঞ্চলগুলোতে। গত তিনদিনসূর্য্যস্তের কিছু সময় পূর্বে ছাড়া সারাদিন সূর্যের আলোকরশ্মিদেখতে পায়নি এ অঞ্চলের মানুষ। বৃহৎ করতোয়া ও ভারতের মহানন্দা নদীবেষ্টিতঅঞ্চল হওয়ায় ঠান্ডার প্রকপ তীব্র আকার ধারন করেছে।

কুয়াশার প্রভাবে তীব্রশীতল বয়ে যাওয়া হিমেল বাতাসের কারণে কর্মজীবনে নেমে এসেছেঅস্থিরতা। খেটে খাওয়া ছিন্নমুল মানুষজন পড়েছে বিপাকে। কেউ কেউখঁড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারনের চেষ্টার করছেন। এমতাস্থায় শীতের গরমকাপড় ক্রয় করতে ক্রেতারা ভীর করছেন ফুটপাতের দোকানগুলোতে ও মৌসূমীকাপড় ব্যবসায়ীদের ভ্রাম্যমান দোকানে।

পঞ্চগড়ের পৌর শহর সহ হাট বাজারগুলোতেও সমান তালে জমে উঠেছে শীতের গরম কাপড় ক্রয় বিক্রয়ের হিরিক। স্বল্পদামেই মিলছে ভালো মানের শীত নিবারনের গরম কাপড়। নিজের ও পরিবারেরসঙ্গে নিয়ে এসে নানা রঙ্গের রকমারী ডিজাইনের গরম কাপড় ক্রয় করছেন এঅঞ্চলের সাধারন মানুষ।সরেজমিনে রবিবার দেবীগঞ্জ উপজেলার পৌর শহরের বিজয় চত্ত্বর মোড়ে অবস্থিতফুটপাতের মৌসূমী কাপড় বিক্রেতার দোকান গুলোতে লক্ষ করা গেছে ক্রেতাদেরগরম কাপড় সংগ্রহের জমজমাট ভিড়।

টানা কয়েক দিন থেকে আকাশমেঘাচ্ছন্ন থাকায় বাবা মায়েরা ছোট সন্তানদের নিয়ে পড়েছেন বিপাকে।এক মৌসূমী কাপড় বিক্রেতা বলেন, বড়দের চেয়ে শিশুদের গরম কাপড় সাধারনতবিক্রি হচ্ছে বেশি। তবে শীত বাড়ার কারণের বর্তমানে আগের তুলনায়সমানে সমান বিক্রি চলছে। অন্য এক কাপড় ব্যবসায়ী নুরুল আমিনজানান, এ রকম আবহাওয়া অব্যহত থাকলে ব্যবসার পক্ষে বেশ ভালোই হবে।